‘বড়ছেলে’ চিকুর মৃত্যুতে শোকে আত্মহারা হয়ে পড়লেন অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী

কলকাতা হান্ট ডেস্কঃ আমাদের সকলের পরিবারেই ঘরের পোষ্যদের সন্তানসম হিসেবে পালন করা হয়।কিন্তু কিছু মানুষের জীবনে তাদের পোষ্যরা এতটাই জায়গা গ্রহণ করে থাকেন যে নিজের থেকেও বেশি খেয়াল রাখতে দেখা যায় তাদের। ঠিক একই রকমভাবে অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর কাছেও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল তার পোষ্য ল্যাব্রাডর অর্থাৎ প্রিয় বড় ছেলে চিকু।। মিমির সাথে একাধিক ছবি এবং ভিডিওতে দেখা যেত এই
ল্যাব্রাডরটিকে।কিন্তু সম্প্রতি হঠাৎ করেই দীর্ঘদিন মারণরোগ ক্যান্সারের ভোগান্তির পর এদিন মারা গেলেন তার এই বড় ছেলে। যার ফলস্বরূপ ইতিমধ্যেই মানসিকভাবে সম্পূর্ণরূপে ভেঙে পড়েছেন মিমি।প্রসঙ্গত উল্লেখ্য কয়েক মাস আগেই হঠাৎ করে ইনস্টাগ্রামে একটি পোষ্টের মাধ্যমে চিকুর ক্যান্সার আক্রান্ত হওয়ার খবর জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী। তাকে সুস্থ করার জন্য চিকিৎসকদের খোঁজ নিতেও দেখা যায় মিমিকে। কিন্তু হাজার চিকিৎসা করেও শেষ রক্ষা হল না।এই পরিস্থিতিতে হঠাৎ করেই এদিন তার মৃত্যুর খবর পাওয়া গেল।

আরও পড়ুনঃ মর্মান্তিক ঘটনার বহিঃপ্রকাশ, স্তন্যপান করার জন্য মৃত মায়ের পাশে ক্ষুধার্ত শিশুর কান্না

শনিবার হঠাৎ করে ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে অভিনেত্রীকে একটি আবেগপূর্ণ ক্যাপশন দিতে দেখা যায়। যেখানে চিকুর ধুপ,মোমবাতি জ্বালানো কবরের ছবি শেয়ার করেছেন অভিনেত্রী। তিনি লিখেছেন,“আমার হৃদয়ের একটা অংশ তুমি নিজের সঙ্গে করে নিয়ে গেলে। সমস্ত কষ্ট শেষ। এবার তুমি বিশ্রাম নাও। মা তোমাকে ভালোবাসে“। এই খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই মিমিকে সান্ত্বনা দিতে থাকেন তার অনুরাগীরা। তার কারণ একমাত্র ছেলের ক্যান্সার আক্রান্ত হবার খবরেই অনেকটা ভেঙে পড়েছিলেন অভিনেত্রী। এরপর এই ঘটনা যে তাকে কেমন ভাবে আঘাত করেছে তা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ মর্মান্তিক ঘটনার বহিঃপ্রকাশ, স্তন্যপান করার জন্য মৃত মায়ের পাশে ক্ষুধার্ত শিশুর কান্না

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য বর্তমানে কিছুদিন আগেই চিকুকে চিকিৎসার জন্য চেন্নাইতে নিয়ে গিয়েছিলেন মিমি। এখানকার ডাক্তারেরা জানিয়ে দিয়েছিলেন তাকে আর কোনভাবেই বাঁচানো সম্ভব নয়। এমতাবস্থায় সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্য নিয়ে চেন্নাই উপস্থিত হন অভিনেত্রী।সেখানে তামিলনাড়ুর ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমাল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিরেক্টর ডক্টর এস বালাসুব্রহ্মণ্য মিমির পোষ্যের চিকিৎসা করেছেন।সেখানে বেশ কিছুদিন চিকিৎসা চলার পর চিকুকে অনেকটাই সুস্থ হতে দেখা গিয়েছিল।সেই সময়ে তাকে সঙ্গে নিয়ে রীতিমতো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট করে সুস্থ হওয়ার খবর জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী। চিকুর সাথে একটি খুনসুটি মুহূর্তের ভিডিও পোস্ট করে মিমি লিখেছিলেন,”চিকু বলছে সবাইকে প্রার্থনা করার জন্য ধন্যবাদ। আমি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছি”। অনেকেই অভিনেত্রীর এই পোস্টে চিকুর জন্য সুস্থতা কামনা করে ছিলেন। কিন্তু সব প্রার্থনাকেই যেন মলিন করে দিয়ে অনন্তের পথে পা বাড়ালো মিমির ‘বড় ছেলে’।