দিনের শেষে ঊর্ধ্বমুখী হলো সোনা ও রুপোর দাম, জেনে নিন আজকের বাজার দর

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিগত বেশ কিছু সময় ধরেই ক্রমাগত পতন ঘটেছিল হলুদ ধাতুর দামের ক্ষেত্রে। এখনো পর্যন্ত বিশেষজ্ঞরা এই দামের পতনের বিশেষ কোনো কারণ জানাতে সমর্থ হননি। তবে কিছু অর্থনীতিবিদদের মতে, করোনাভাইরাস এর দ্বিতীয় ঢেউ, জার্মান ব্যাংকসহ বিশ্বের বেশ কিছু নীতি এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক লগ্নিকারী প্যাকেজ সবকিছুর প্রভাব পড়ছে সোনার উপর। যার ফলে আপাতত ঊর্ধ্বমুখী হতে পারছেনা এই ধাতুর দাম। মাঝে মাঝে উত্থান দেখা গেলেও তার পরিমাণ খুবই সামান্য বা প্রায় নেই বললেই চলে।সম্প্রতি আজ মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক বাজারসহ ভারতীয় বাজারে কিছুটা উঠতে দেখা গেল সোনার দাম।সোনার পাশাপাশি এদিন রুপোর দাম এর ক্ষেত্রেও পরিবর্তন ঘটেছে।জানিয়ে রাখি সোনার দামের পতনের ফলে বিশেষ কোনো অসুবিধা হয়নি স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের।তার কারণ সোনা অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি ধাতু হওয়া সত্বেও তার বহুমূল্য দামের জন্য সাধারণ মানুষের ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকে। তাই এই দামের পতনের ফলে স্বাভাবিকভাবেই সাধারণ মানুষের কাছে সহজলভ্য হয়ে উঠেছে সোনা।প্রসঙ্গত বিয়ের বাজার এবং যে কোন ভারতীয় বিয়ে বা অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে সোনার মূল্য অত্যধিক। কিন্তু বেশিরভাগ সময়তে উচ্চবিত্ত মানুষরা ছাড়া এই ধাতু সকলে ক্রয় করতে পারেন না।মধ্যবিত্ত এবং নিম্নবিত্তরা সাধারণত সোনার বিকল্প হিসেবে সিটি গোল্ড জাতীয় গয়নার ব্যবহার করে থাকেন। আর এদিকে লক্ষণীয় বিষয় যে দেশের বেশিরভাগ জনগণের মধ্যে নিম্নবিত্ত এবং মধ্যবিত্ত মানুষের সংখ্যা অত্যধিক। আসুন এবার এক নজরে জেনে নেওয়া যাক আজ সোনার দাম কেমন থাকছে!

আরও পড়ুনঃ সিঁথিতে সিঁদুর লাগিয়ে বিকৃত করা হলো মুখ্যমন্ত্রীর ছবি, বাড়ছে রাজনৈতিক তরজা

আজ আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দাম অন্যান্য দিনের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে।এক আউন্স স্পট গোল্ডের দাম ০.৩ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১,৭৩৩.৩১ ডলার। অপরদিকে রুপোর দাম ০.৩ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৪.৯৬ ডলার। ভারতীয় বাজারের ক্ষেত্রে আজ মঙ্গলবার এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম জুন গোল্ড ফিউচার্সের দাম ০.৩৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৫ হাজার ৫০৩ টাকা। সোনাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে আজ এক কেজি রুপোর দাম ০.৬ শতাংশ বেড়ে ৬৪ হাজার ৯৪৩ টাকা হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য গত বছর লকডাউন এর সময় হঠাৎ করে এক ধাক্কাতেই সোনার দাম ৫৬ হাজার ২০০ টাকাতে পৌঁছে গিয়েছিল। যদিও চলতি বছরের শুরুর দিক থেকে নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রয়েছে হলুদ ধাতুর দাম। মার্চ মাসের শেষের দিকে সোনার দাম বাড়ার কথা জানিয়েছিলেন অর্থনীতিবিদরা।কিন্তু আজ এপ্রিল মাস শুরু হয়ে যাওয়ার পরেও সোনার দামে উত্থানের কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি।আপাতত এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম সোনা ৪৬ হাজার ১৫০ টাকায় বাধা পাচ্ছে। আর সহায়তা পাচ্ছে ৪৪ হাজার ১০০ টাকায়।

আরও পড়ুনঃ চকোলেটের নামেই রয়েছে Helicopter Shot, নতুন ব্যবসায় MS Dhoni

যদি আপনি ভবিষ্যৎ সঞ্চয় এর জন্য সোনা কিনতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে আজকেই আপনার নিকটবর্তী গহনার দোকানে যেতে পারেন। তবে অবশ্যই সোনা কেনার আগে হলমার্ক এবং অন্যান্য বিষয়গুলি যাচাই করে নেবেন। নাহলে লোভী ব্যবসায়ীদের প্রতারণার জালে জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সোনা কেনার হলে চেনাশোনা গহনার দোকান বা কোন বিখ্যাত শোরুম থেকেই কিনুন, যাতে সমস্যায় পড়তে না হয়। সাধারনত সোনা যে দামে কেনা হয় সেই দামে বিক্রি করা যায় না। তাই বিপদের দিনে এই ধাতুর মূল্য অত্যধিক। মানুষের স্থাবর সম্পত্তি হিসেবে গণ্য করা হয় সোনাকে। অনেকেই ব্যক্তিগত ভাবে সোনাপ্রেমী হিসেবে পরিচিত। সোনার গয়নার প্রতি মানুষের আকর্ষন বহু প্রাচীনকাল থেকেই। নববধূ থেকে শুরু করে মৃত্যু যাত্রায় যেকোন মহিলাকে সোনার আবরণে মোড়ানোর নিয়ম রয়েছে। আগেকার দিনে টাকার বিপরীতে অনেক ক্ষেত্রেই লেনদেনের জন্য সোনা ব্যবহার করা হতো। প্রাচীনকালে ভারত ছিল রাজতান্ত্রিক দেশ। তাই এই সময়ে মুদ্রা থেকে শুরু করে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সোনার চল ছিল বহুল পরিমাণে। এখন সময়ের সাথে সাথে দামের জন্য এই নিয়মের পরিবর্তন ঘটলেও সম্পূর্ণরূপে হেরফের হয়নি।