পিছিয়ে গেল বর্ষার বিদায়, তৃতীয়া থেকেই শুরু বৃষ্টি, পুজোয় ভাসবে বাংলা

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিগত বছরগুলোর তুলনায় এবছর বৃষ্টির পরিমাণ বেশি। নিম্নচাপের কালো ভ্রুকুটি যেন সরতেই চাইছে না। তাই রাজ্যজুড়ে এক টানা বৃষ্টি চলেছিল বেশ কয়েকদিন ধরে। ফলে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বিঘ্নিত হয়েছিল। বহু এলাকা জলমগ্ন ছিল। এখন আবার কিছুদিন নিম্নচাপের হাত থেকে রেহাই মিলেছে। তবে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হচ্ছে রাজ্যজুড়ে। এই মুহূর্তে অনেকেরই প্রশ্ন তাহলে কি এবার পুজোতেও বৃষ্টি হবে? আর ক’দিন চলবে এই বৃষ্টিপাত?

আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে আগেই জানানো হয়ছিল যে পুজোয় বৃষ্টি হতে পারে। এবারে আবহাওয়া দপ্তর সেই সম্ভবনায় সিলমোহর দিলো। এবারের দুর্গা পুজোতেও বৃষ্টি কমার সম্ভবনা তেমন নেই বললেই চলে। এখনই রেহাই নিম্নচাপের হাত থেকে। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে সূত্রে দিন জানানো হয়েছে, আবার নিম্নচাপ তৈরির সম্ভবনা রয়েছে। ফল অষ্টমী থেকে দশমী পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে প্রচুর বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে পুজোর শুরুতে বৃষ্টির সম্ভবনা অনেক কম। কিন্তু তৃতীয়াতে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে বলে। তবে পশ্চিমবঙ্গে অত্যধিক আদ্রতা প্রবেশ করায়, আদ্রতাজনিত অস্বস্তি বৃদ্ধি পাবে।

পুজোর সময় চতুর্থী থেকে সপ্তমী পর্যন্ত মোটামুটি আকাশ পরিষ্কার থাকবে। এইসময় বৃষ্টির সম্ভবনা কম। বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে। তাপমাত্রা স্বাভাবিকের উপরে থাকবে। আর আদ্রতাজনিত অস্বস্তিও বাড়বে। কিন্তু অষ্টমী থেকে দশমী পর্যন্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। দক্ষিণবঙ্গে কলকাতা,হাওড়া, হুগলি, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর এই সাত জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে।

দক্ষিণবঙ্গের অন্যান্য জেলাতে আকাশ আংশিক মেঘলা থাকবে এবং হালকা বৃষ্টির সম্ভবনাও রয়েছে। আগামী ৯ অক্টোবর থেকে ১২ অক্টোবর পর্যন্ত কলকাতা সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া মোটামুটি ভালোই থাকবে। উত্তরবঙ্গে তৃতীয়া নাগাদ ভারী বৃষ্টিপাত হবে। কিন্তু চতুর্থী থেকে আকাশ মোটামুটি পরিস্কার থাকবে।

তবে পঞ্চমীর দিন আন্দামান সাগরে নিম্নচাপ তৈরির সম্ভবনা রয়েছে। এই নিম্নচাপ ক্রমশ উত্তর ও দক্ষিণ ওড়িষ্যা উপকূলের দিকে এগিয়ে যাবে। বুধ,বৃহস্পতিবার নাগাদ এটি উপকূলের কাছাকাছি আছড়ে পরবে। সেই সময়ে বাংলা, উড়িষ্যা ও অন্ধ্র উপকূলে বৃষ্টি বাড়বে বলে জানা গেছে। আজ সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৪.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস৷ আর আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ৬২ থেকে ৯৭ শতাংশ।

আরও পড়ুন

Back to top button