কৃষক বন্ধু, লক্ষীর ভান্ডার ও স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড নিয়ে বড়সড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই রাজ্যের প্রতিটি মহিলাদের জন্য এবং সাধারন খেটে খাওয়া মানুষের জন্য একাধিক প্রকল্প সূচনা করেছেন এবং এই সমস্ত প্রকল্পগুলো বিশ্ব দরবারে তুলে ধরেছে আমাদের এই পশ্চিমবঙ্গ কে ।যেমন কন্যাশ্রী প্রকল্প সবুজ সাথী প্রকল্প জল ধরো জল ভরো প্রকল্প কৃষক বন্ধু প্রকল্প সহ আরও একাধিক প্রকল্প প্রকল্প জারি হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে। সমীক্ষা বলছে পশ্চিমবঙ্গের মতন সুযোগ সুবিধা প্রাপ্ত রাজ্য ভারতে আর একটিও নেই,

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প নিয়ে কৃষক বন্ধু প্রকল্প নিয়ে এবং স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্প নিয়ে যে সমস্ত নতুন ঘোষণা করলেন তা জানানো থাকবে আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে। সম্পূর্ণ প্রতিবেদনটি পড়ার অনুরোধ রইল। লক্ষ্মী ভান্ডার প্রকল্প সম্পর্কে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন যে সমস্ত জেলার মহিলারা এখনো পর্যন্ত আবেদন করতে পারেননি বা কোনো কারণবশত আবেদন ভুল হয়েছিল তাই বাতিল হয়ে গেছে সেই সমস্ত মহিলারা আবার যখন দুয়ারে সরকার ক্যাম্প হবে তখন নিশ্চিন্তে আবার আবেদন করতে পারবেন।

ইতিমধ্যে ৮০ লক্ষ মানুষের একাউন্টে 500 টাকা করে ধুকে গেছে। কৃষক বন্ধু প্রকল্প সম্পর্কে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন যে আমরা সরাসরি অন্য কারো মাধ্যম ছাড়াই হাতে টাকা প্রদান করে থাকি । যেমন কৃষক বন্ধুদের কে 10 হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা করা হয় রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ।এত বিশাল সংখ্যক টাকা অন্য কোন রাজ্যের দেওয়া হয় না বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অপরদিকে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এক আলাদা মাত্রা নিয়ে এসেছে রাজ্যের পড়ুয়াদের জন্য। আগে বাবা মা দেরকে পড়াশোনা করানোর জন্য টাকা-পয়সা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করতে হতো। এমন অনেকেই রয়েছে যারা টাকা পয়সার অভাবে বেশিদূর পড়তে পারেনি। এবার তাদের মুখে হাসি ফুটেছে। কারণ 40 বছর অব্দি এই রাজ্যের পড়ুয়ারা 10 লক্ষ টাকা পর্যন্ত আর্থিক লোন পাবে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। লাগবেনা কোন গ্যেরেন্টার। এর জন্য রাজ্য সরকার দিয়েছে পনের বছর সময় চাকরি ।চাকরি পাবার 15 বছর পর আপনি সেটাকে ধীরে ধীরে শোধ করে দিতে পারেন সরকারকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button