ব্রা না-পরার একাধিক উপকারিতা রয়েছে জানেন কী? এবার নিশ্চিন্তে ব্রা মুক্ত থাকুন

নিজস্ব প্রতিবেদন: এই নিয়ে তর্ক-বিতর্কের শেষ নেই। অনেকেই মনে করেন ব্রা পরে থাকা তাদের ফিগার সুন্দর রাখতে সহায়তা করে। আবার অনেকের মতে, এই অভ্যাসটি স্তন ক্যান্সারের কারণ! কিন্তু আসলে কোনটা সত্য? তবে সত্য মিথ্যা যাই হোক, ব্রা না পরে থাকার উপকার অনেক।

কিন্তু এমন অনেকে আছেন, যাঁরা রাতেও ব্রা পরে থাকতেই অভ্যস্ত। তাঁরা কি ঠিক করছেন না ভুল? এক কথায় এর উত্তর দেওয়া সম্ভব নয়। তবে বিশেষজ্ঞরা বলেন, এমন কিছু বেছে নিন যার স্ট্র্যাপ বা বাস্ট খুব টাইট নয় এবং আপনার ত্বকের উপর চেপে বসবে না। বিশেষ করে যাঁরা উপুড় হয়ে শুয়ে ঘুমোতে অভ্যস্ত এবং গুরুস্তনী, তাঁরা সাপোর্ট ব্রা পরে শুলে নিশ্চিতভাবেই উপকৃত হবেন।

তবে জেনে নিন ব্রা না করার উপকারিতা

স্তনের ত্বক ভালো থাকে- ব্রা পরে থাকলে ত্বকে নোংরা জমে থাকতে পারে এবং ঘামও হতে পারে। এর ফলে রোমছিদ্র বন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয়। এমনকি জ্বালাও হতে পারে। বিশেষত ত্বকে জ্বালাও হতে পারে।

রক্ত চলাচল সুষ্ঠু ভাবে হয়- বেশ কয়েক ঘণ্টা লাগাতার ব্রা পরে থাকলে সাফোকেশন হতে পারে। পিঠ ও বুকের মাংসপেশীতে রক্ত চলাচল কম করে দিতে পারে ব্রা। এর ফলে ব্যথা হতে পারে। ব্রা না-পরলে শরীরের ওপরের অংশে রক্ত চলাচল সুষ্ঠু ভাবে হয়।

স্বাস্থ্কর ব্রেস্ট- ব্রা পরে থাকার ফলে স্তনের টিস্যুগুলি শক্ত হতে শুরু করে। এর ফলে স্তনে রক্ত পৌঁছতে পারে না। ব্রা না-পরলে স্তনযুগলে রক্ত সঞ্চার ভালো ভাবে হয়। এর ফলে স্তন সুস্থ থাকে।

ভালো ঘুম আসে- অনেকেই ব্রা খুলে ঘুমাতে ভালোবাসেন। ব্রা খুলে ঘুমালে সাফোকেশন থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ক্রোনোবায়োলজি ইন্টারন্যাশনাল জার্নালে প্রকাশিত এক সমীক্ষার রিপোর্টে জানা গিয়েছে, ঘুমানোর সময় ব্রা বা প্যান্টির মতো টাইট জামা কাপড় পরলে ঘুমের সময় সমস্যা দেখা দেয়।

শ্বসন প্রক্রিয়ায় উন্নতি হয়- গরমকালে ব্রা পরে থাকা অত্যন্ত কষ্টকর। এ সময় টাইট বা ওয়ার দেওয়া ব্রা পরলে সাফোকেশন হতে পারে। ব্রা না-পরলে হাল্কা অনুভব করবেন। পাশাপাশি ডায়াগ্রামে কম চাপ পড়ে।

আরও পড়ুন

Back to top button