কৃষ্ণের আশীর্বাদ পেতে জন্মাষ্টমীতে ভুলেও যে কাজ করবেন না! জেনে নিন

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজ পালিত হতে চলেছে ভগবান শ্রী কৃষ্ণের জন্মদিন, এককথায় আজ পালন হতে চলেছে জন্মাষ্টমী । হিন্দু ধর্মের মানুষদের কাছে ভগবান শ্রী কৃষ্ণ যেমন খুব কাছের এক দেবতা ঠিক তেমন ই জন্মাষ্টমীর গুরুত্ব অপরিসীম। অশুভ-অকল্যাণ থেকে দূরে থাকার জন্য ব্রত রাখেন অনেকেই।

ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতেই শ্রীকৃষ্ণ এই ধরাধামে অবতীর্ণ হয়েছিলেন বলে বিশ্বাস করা হয়।দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পালন করা হয় এই বিশেষ দিনটিকে, শ্রীকৃষ্ণের আশীর্বাদ পেতে এদিন উপবাস রেখে পুজো-অর্চনা করেন অনেকেই। তবে জন্মাষ্টমীতে ১০টি কাজ ভুলেও করবেন না। জেনেনিন সেগুলো

১. ভগবান শ্রীকৃষ্ণের পছন্দের একটি জিনিস হলো তুলসি পাতা ,তাই জন্মাষ্টমীর প্রসাদের মধ্যে তুলসী পাতা মিশিয়ে দিন ।

২. ঠাকুর-দেবতার কাজে তামা-পিতল-মাটির প্রদীপ ব্যবহার করা শ্রেয় তাতে ভগবান খুব খুশি হয়ে থাকেন।

৩. ঠাকুরের পূজার জন্য যে ফুল ব্যবহার করবেন তা ভালো করে দেখে নেবেন টাটকা ফুল কিনা, ঠাকুর টাটকা ফুল গ্রহণ করতে বেশি পছন্দ করেন ।

৪. জন্মাষ্টমীতে উপোষ রাখতে হয়, পুজো শেষ হওয়ার আগে কিছু খাওয়া যাবে না। এমনকি এক কাপ চা খেলেও আপনি পুজোয় বসতে পারবেন না। যদি কিছু খেয়ে ফেলেন, তাহলে পুজোয় বসার আগে অবশ্যই ভালো করে দাঁত ব্রাশ করে নিন।

৫. জন্মাষ্টমীতে সবসময় চেষ্টা করবেন যত নতুন ধরণের বস্ত্র পরিধান করা যায় অর্থাৎ পরিষ্কার বস্ত্র পরিধান করুন ।তবে দেখবেন সেই বস্ত্র যেন পাটের না হয় ।

৬. জন্মাষ্টমীতে ছোট্ট একটা রূপোর বাঁশি কিনুন। পুজোয় সময় বাঁশিটা গোপালের সামনে রেখে দিন। পুজো হয়ে গেলে বাঁশি টি আপনার মানি ব্যাগ এ রেখে দিন এর ফলে আপনার জীবনে অর্থের কখন ও খামতি দেখা যাবে না ।

৭. শ্রীকৃষ্ণ হলেন মিষ্টি প্রেমী, প্রসাদ হিসেবে মাখন-মিছরি অবশ্যই খাবেন। এতে আপনার মনের সব ইচ্ছে পূরণ হবে।

৮. জন্মাষ্টমীতে কৃষ্ণ ও বলরামের মূর্তিতে রাখি বাঁধতে ভুলবেন না। এতে আপনার সংকটে আপনাকে উদ্ধার করবেন খোদ শ্রীকৃষ্ণ ও বলরাম।

৯. জন্মাষ্টমীর পুজোয় শাঁখের মধ্যে একটু দুধ রাখুন। এতে আপনার জীবনে সুখ বিরাজ করবে।

১০. শ্রীকৃষ্ণ ছিলেন গোপালক।আপনি জন্মাষ্টমী পূজার সময় গরু বা বাছুরের মূর্তি ঘরে আনতে পারেন এর ফলে আপনার জীবন থেকে কমে যাবে দুঃখ এবং ভগবানের কৃপায় আপনি সুখ-শান্তিতে জীবন যাপন করতে পারবেন ।

আরও পড়ুন

Back to top button