চাকরির চিন্তা ভুলে যান! রেলের সঙ্গে ব্যবসা করে বাড়তে বসেই আয় করুন মোটা টাকা! রইল।বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- করোনা কালে রীতিমতো মুখ থুবড়ে পড়েছে দেশের অর্থনীতি। তার কারণ একেক করে বন্ধ হয়ে গেছে নামিদামি বিভিন্ন সংস্থা বা কোম্পানি। তার পাশাপাশি লক্ষ লক্ষ কর্মী ছাঁটাই হয়েছে সেই সময়ে। এমতাবস্থায় মানুষ পুনরায় রোজগারের পথ হিসেবে বেছে নিচ্ছে ব্যবসাকে। কিন্তু কি ধরনের ব্যবসা করলে আপনি আবার পুনরায় আগের মতন টাকা পয়সা উপার্জন করতে পারবেন সে ব্যাপারে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন অনেকে কারণ তাদের কাছে নেই কোন উপযুক্ত ভাবনাচিন্তা।

আজকের প্রতিবেদন মাধ্যমে আপনাদেরকে যে ব্যবসার কথা বলতে চলেছি সেখানে আপনি সরাসরি ভারতীয় রেলের সাথে যুক্ত হতে পারবেন এবং ব্যবসা শুরু করতে পারেন। রেল আধিকারিকদের ওপর চাপ কমানোর জন্য এবং গ্রাহকদের কে সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার জন্য ভারতীয় রেল এজেন্ট দের সন্ধানে রয়েছে অর্থাৎ আইআরসিটিসি এজেন্ট এর রমরমা চলছে এই মুহূর্তে। গোটা দেশজুড়ে সে ক্ষেত্রে আপনি এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কাটতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না । বিশেষ করে এই মহামারীর সময়। কিন্তু তারা বিভিন্ন এজেন্টের মাধ্যমে রেলের টিকিট বুকিং করিয়ে থাকে। সেই ব্যবসা কিন্তু আপনি অনায়াসে বাড়িতে বসে শুরু করতে পারেন। কমিশনের ভিত্তিতে আপনার প্রতি মাসে অন্তত ৫০-৬০ হাজার টাকা উপার্জন হবে। আইআরসিটিসি এজেন্ট হিসাবে,

আপনি নন-এসি ক্লাসের ক্ষেত্রে পিএনআর প্রতি ২০ টাকা এবং এসি ক্লাসে পিএনআর প্রতি ৪০ টাকা কমিশন পান। অনেকেই এভাবে মাসে ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা অবধি রোজকার করছেন। জানিয়ে রাখি ২০০০ টাকার বেশি লেনদেন হলে সেক্ষেত্রে ১ পার্সেন্ট দেওয়া হয় এজেন্টকে। আপনি যদি ব্যবসা শুরু করতে চান এবং নিজেকে একজন এজেন্ট হিসেবে নথিভূক্ত করতে চাই তাহলে অতি অবশ্যই আপনাকে আইআরসিটিসি অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে।

সেখানে একটি আবেদনপত্র দেখতে পাবেন। আবেদনপত্র পূরণ করতে হবে তারপর ভারতীয় রেল অনুমতি দিলে তবে আপনি এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এছাড়া আপনার প্রয়োজন হবে প্যান কার্ড, আধার কার্ড, মোবাইল নম্বর, বৈধ ইমেইল আইডি, ছবি, আবাসিক ঠিকানার প্রমাণ, ঘোষণা ফর্ম ইত্যাদি জরুরী নথিপত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button