পুজোর পরেই মহা দুর্যোগ! বাংলার দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় কোম্পাসু! সতর্ক করল আবহাওয়া দপ্তর।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর খবর অনুসারে এমনটাই জানানো হয়েছিল যে পুজোর কয়েকটা দিন ব্যাপকহারে বৃষ্টিপাত হবে রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলাতেই। কিন্তু সে হারে তেমন কোন বৃষ্টিপাত লক্ষ্য করা যায়নি রাজ্যে। এমনটা জানানো হয়েছিল যে বঙ্গোপসাগর উপর তৈরি হওয়া ঘূর্ণিঝড় সাধারণত উড়িষ্যা উপকূলে আছড়ে পড়ার পর তা গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে এবং তার প্রভাব পড়বে বাংলার কয়টি জেলার উপর।

তবে পুজোর সময় বিশেষ বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি এই বৃষ্টি। আকাশের অবস্থা ঝলমলে ছিল। যদিও বেশ কয়েকটি জেলায় বৃষ্টিপাতের ঘটনা উঠে এসেছে। কিন্তু এই ঘটনার রেশ কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই ফের আরও একটি ঘূর্ণিঝড়ের আবহাওয়াবিদরা। আবহাওয়াবিদরা এমনটা জানাচ্ছেন যে দক্ষিণ চীন সাগরে তৈরি হওয়া ট্রপিক্যাল ঘূর্ণিঝ-ড় ‘কোম্পাসু’ ধেয়ে আসতে পারে বঙ্গোপসাগরেও৷ আর তার জেরেই প্রভাব পড়তে পারে ভারতে।

হংকং এলাকার দক্ষিণ পূর্বে ও ম্যানিলা এলাকার উত্তর ও উত্তর পূর্ব দিকে অবস্থান করছে এই ঘূর্ণিঝ-ড়টি । তবে এই ঘূর্ণিঝ-ড়ে গতিবেগ হবে ঘন্টা কুড়ি কিলোমিটার এর বেশি। কিন্তু আছড়ে পড়ার পর অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাবে এর গতিবেগ। সেই মুহূর্তেই ঘূর্ণিঝ-ড়ের গতিবেগ ৯০ কিলো মিটার বেশি হবে বলে অনুমান করছে আবহাওয়াবিদেরা। এই ঝড়ের নাম রাখা হয়েছে ‘কম্পাসু’। যাকে ইতিমধ্যে ক্যাটাগরি ওয়ান এর হ্যারিকেন বিভাগে মান্যতা দিয়েছে আবহাওয়াবিদরা।

যদিও এর তাণ্ডব চালানোর জায়গা হংকং কিন্তু তার প্রভাব পড়তে চলেছে ভারতের মধ্যে। হংকংয়ের সেই উপকূলবর্তী অঞ্চলে থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে মানুষজনদের কে। পাশাপাশি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বেশ কয়েকটি স্কুল কলেজ কে ।একদিকে যেমন চীনের বিভিন্ন অঞ্চলে চীনের আক্রমণ চালাবে এই ‘কোম্পাসু’ তেমনি টোনকিন উপসাগরে পৌঁছানোর পর ক্রমশ গতিবেগ বাড়িয়ে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠবে এই ঝড়।এই ঝড়ের প্রভাবে বাংলাতেও শনিবার থেকে বজ্র বিদ্যুৎসহ বৃষ্টি পাতের ঘটনা লক্ষ করা যাবে বলে অনুমান আবহাওয়াবিদদের ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button