বাইক আরোহীদের জন্য দারুন সুখবর! রাস্তায় বেরোলে আর হতে হবেনা হেনস্থা! জানিয়ে দিল কেন্দ্র! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বর্তমানে ইউটিউবে মোটর ব্লগ একটি জনপ্রিয় মাধ্যম বা ক্ষেত্র হয়ে উঠছে প্রতিনিয়ত। অনেকে বাইক নিয়ে গিয়ে স্টান্ট করা বা রেসিং করার মতন ভিডিও সেখানে প্রকাশিত করে থাকে। কিন্তু এমনটা ভুলে গেলে চলবে না যে শুধুমাত্র বাইক থাকলে কাজ মিটে যাবে তেমন কিন্তু নয়। তার পাশাপাশি অতি অবশ্যই আপনার কাছে থাকতে হবে ড্রাইভিং লাইসেন্স ও গাড়ির কাগজপত্র। এবং এই সমস্ত কাগজপত্র গুলি অতি অবশ্যই আপনার সাথে থাকতে হবে যখন আপনি গাড়ি নিয়ে বাইরে বের হবেন।

কিন্তু নষ্ট হয়ে যাওয়াহারিয়ে হারিয়ে যাওয়ার মতন ঘটনা সামনের সারিতে উঠে এসেছে বারবার সেই সমস্ত ঘটনা গুলোকে সামনে রেখেই সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার একটি নিয়ম জারি করেছে। জারি করা নিয়মে মাধ্যমে এমনটা বলা হয়েছে যে এবার থেকে ড্রাইভিং লাইসেন্স গাড়ির কাগজপত্র সাথে না নিয়ে গেলেও চলবে। কিন্তু ড্রাইভিং লাইসেন্স সাথে নিয়ে যাওয়ার একাধিক সমস্যা রয়েছে । কখনো হারিয়ে যায় কখনো বৃষ্টির জলে ভিজে যায় কখনো আবার চুরি হয়ে যায় ।

তাই অনেকেই ইচ্ছাকৃতভাবে সেই সমস্ত কাগজপত্র গুলো বাড়ির মধ্যে রেখে দেয় ।এবার থেকে আর গাড়ি নিয়ে বের হলে কাগজপত্র নিয়ে যেতে হবে না ।এমনি নতুন নির্দেশিকা দিল দিল্লি সরকার ।একদমই ঠিক শুনেছেন ।একটি বিশেষ অ্যাপ্লিকেশন তারা লঞ্চ করেছে ইতিমধ্যে বাজারে । যার মাধ্যমে আপনি আপনার যাবতীয় গাড়ির ডকুমেন্ট সেভ রাখতে পারবেন। উল্লেখ্য, মোটর ভেহিকেলস আইন, ১৯৮৮ অনুযায়ী অ্যাপে সেভ করা তথ্যাদিও আসলের মতোই গণ্য করা হবে।

তাছাড়া তথ্যপ্রযুক্তি আইন, ২০০০ অনুসারেও উপরোক্ত তথ্যাদি হার্ড কপির মতোই বৈধ।এ  ব্যাপারে জেনে রাখা দরকার, মোবাইল অ্যাপে রাখা এই সফট কপিগুলি কখনই গ্রাহকের আসল তথ্যাদি বলে গণ্য করা হবে না।দিল্লি সরকার জানিয়েছে, ডিজি-লকার বা এম-পরিবহন মোবাইল অ্যাপে ড্রাইভিং লাইসেন্সসহ অন্যান্য তথ্যাদি সেভ রাখলেই হবে। রাস্তায় ট্রাফিক পুলিস বা পরিবহন দফতরে যেকোন কাজের জন্য সেই অ্যাপে সেভ করা ডকুমেন্টস দেখালেই হবে।

এর পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে আরও একটি তথ্য জারি করা হয়েছে সেখানে জানানো হয়েছে যে যদি কোন বাইক আরোহী তাদের হেলমেটে ক্যামেরা লাগিয়ে রাখে তাহলে সরাসরি ভাবে তার ড্রাইভিং লাইসেন্স বাতিল করা হবে। কেরালাতে সম্প্রতি এরকম একটি নিয়ম জারি করা হয়েছে। আমরা অনেক সময় দেখেছি পুলিশের হাত থেকে সম্পুর্ন রকম ভাবে রেহাই পেতে কেউ কেউ রেকর্ড করে রাখতে বা নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করার জন্য অনেকেই একশন ক্যামেরা লাগিয়ে রাখেন।

কিন্তু এই একশন ক্যামেরা গু-লি অনেক সময় বিপদ ডেকে আনতে পারে আপনাদের। বড়সড় দু-র্ঘটনা ঘটতে পারে। এর পাশাপাশি মোটরে মোটর স্টান্ট এর মতন কাজে যুক্ত হওয়া বাইক আরোহীদের হেলমেট এ এই ধরনের ছোট একশন ক্যামেরা লাগানো থাকে। এমতাবস্থায় যদি কোন বাইক আরোহী পুলিশের হাতে ধরা পড়ে তাহলে তার লাইসেন্স বাতিল করে দেওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button