অবিশ্বাস্য দৃশ্য! বি’ষধর কো’বরা সাপের সঙ্গে একসাথে বসে ভাত খাচ্ছেন বৃদ্ধ! ঝ’ড়ের বেগে ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- সাপের নাম শুনলে আমরা প্রত্যেকেই ভ-য় পায় । সেটি বি-ষাক্ত হোক বা বি-ষহীন হোক । রাত দিন যেকোনো মুহূর্তে যদি আমাদের সামনে এসে উপস্থিত হয় তারা আমাদের মধ্যে একটা আ-তঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি হয় । এ ব্যাপারে নতুন করে বলার কোন অপেক্ষা রাখে না । কারণ পূর্বে এমন অনেক ঘটনা রয়েছে যার দ্বারা প্রমাণিত হয়েছে সাপের কা-মড়ে কতখানি ভ-য়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে একটি মানুষের পক্ষে ।

এমনকি মাত্র ১৫ মিনিটে একটি মানুষের জী-বন শে-ষ হয়ে যেতে পারে । তাই সাপের কা-মড় থেকে নিজেকে রক্ষা করতে এবং নিজের পরিবারকে রেহাই দিতে সাপের থেকে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে চলি আমরা প্রত্যেকে । কিন্তু কোনো কারণবশত যদি সেইসব আপনার বাড়িতে এসে বসে থাকে এবং সেটি পরবর্তী ক্ষেত্রে যদি আপনি দেখতে পান তাহলে অতি অবশ্যই আপনার আ-তঙ্কের সৃষ্টি হবে এ ব্যাপারে নতুন করে বলার আর কোন অপেক্ষা রাখে না।

ঠিক সেরকমই দেখা গেল এই ভিডিওর মাধ্যমে আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা দেখতে পেয়েছি অনেক ব্যক্তিরা সর্প উদ্ধারের কাজ করে থাকেন। এই কাজটি একধারে যেমন অত্যন্ত সাহসিকতার সাথে করতে হয় ঠিক তেমনভাবেই ব্যাক্তিদের অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হয়। কারণ যে কোন মুহূর্তে বি-ষধর সা-প রেগে গিয়ে ছো-বল মা-রতে পারে।

ইতিমধ্যেই আমরা ইন্টারনেটে বেশ কিছু এমন ভিডিও দেখেছি যেখানে খুব দক্ষতার সাথে এই সাপগু-লিকে উদ্ধারের কাজ করা হয়। সাধারণত সাপগু-লিকে উদ্ধার করে জ-ঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হয়। যাতে কোনরকম ভাবে তাদের প্রজাতি বিলুপ্ত না হয়ে যায় এই কারনেই এই কাজ। সম্প্রতি হুগলি জেলার চক্রবর্তী নগরের একটি বাড়িতে সাপ দেখা গেছে । বাড়ির মেঝেতে থাকা বই এর স্তুপে এর মধ্যে লু-কিয়েছিল সাপ ।

ঘটনাচক্রে জানা যাচ্ছে যে ঠিক তারই পাশে এক ব্যক্তি বসে ভাত খাচ্ছিল । হঠাৎ করে তিনি দেখতে পান সে বি-ষাক্ত সাপকে । তখনি তারা খবর দেয় স্থানীয় এক সপুরেকে । কিছুক্ষণের মধ্যে সেখানে উপস্থিত স্থানীয় এক সা-পুড়ে । সে এসে তার সরঞ্জাম দিয়ে সেই সাপটিকে উদ্ধার করে ও ব্যাগে ভরে নিয়ে চলে যায় পরবর্তী ক্ষেত্রে নিরাপদ জায়গায় ছেড়ে দেবে বলে । ইতি মধ্যে সেই ভিডিওটি আ-তঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকাবাসীর মধ্যে তার পাশাপাশি কিছুটা হল আ-তঙ্ক প্রশমিত হয়েছে উদ্ধারের পর ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button