এক পরিবারের কত জন মহিলা একসাথে পাবেন লক্ষীর ভান্ডারের টাকা? জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প আসলে রাজ্যের মহিলাদেরকে সামনের সারিতে তুলে আনার জন্য এক অভিনব উদ্যোগ বলতে পারেন রাজ্য সরকারের তরফ থেকে । এই প্রকল্পের মাধ্যমে ৫০০ টাকা এবং হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে রাজ্যের মহিলাদেরকে । তাই দুয়ারে সরকার যখন অনুষ্ঠিত হয়েছিল তখন রীতিমত চোখে পড়ার মতন ছিল মহিলাদেরকে । প্রত্যেক মহিলা চেয়েছে সরকারি সাহায্য পেতে।

কিন্তু অনেকেই হয়ত ব্যক্তিগত কারণে এই ধরনের প্রকল্প সাথে নিজেকে নিযুক্ত করেন নি। আবার অনেকে উপযুক্ত তথ্য বা নথিপত্র না থাকার জন্য যুক্ত হতে পারেনি ।। কিন্তু যে প্রশ্নটা বারবার উঠে আসছে যে একটি পরিবারের থেকে কতজন লোক কিমানটা প্রকল্পের আবেদন করতে পারবে তারা উত্তর দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানালেন যে ইতিমধ্যে প্রায় দেড় কোটি মহিলা রা লক্ষ্মী ভান্ডার প্রকল্পের নাম নথিভুক্ত করেছে।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গেলে আপনারা বুঝতে পারবেন যে সেখানে প্রায় দুই কোটি পরিবার নাম নথিভুক্ত করেছে । এই দুই কোটি পরিবারের মধ্যে দেড় কোটি পরিবার লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের জন্য আবেদন করেছে । এবং প্রত্যেককে পাঁচশো এবং হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে পুজোর আগেই । এমনটা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।তার পাশাপাশি তিনি বলেন যে সমস্ত মহিলারা নিজেদের নাম নথিভুক্ত করতে পারেননি তারা অতি অবশ্যই পরবর্তী ক্ষেত্রে সুযোগ পাবেন।

ঐদিন নবান্নতে বৈঠকের সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন যে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এ যাদের যাদের নাম রয়েছে পরিবারে সেই সমস্ত মহিলারা একসাথে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করতে পারেন ।অর্থাৎ যদি এমনটা হয় যে বাড়ির সব থেকে বড় মহিলা যিনি তার নামের স্বাস্থ্য অধিকার রয়েছে। কিন্তু তিনি লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আওতায় আসার যোগ্য নয়। তাহলে সেই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর আওতায় বাড়ির অন্যান্য বাকি সকল মেয়ে বৌমাদের যদি নাম থেকে থাকে তাহলেও কিন্তু তারা অতি অবশ্যই আবেদন করতে পারে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের জন্য ।মাথায় রাখতে হবে বয়স 25 থেকে 60 বছরের মধ্যে হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button