বাঘের মুখ থেকে স্বামীকে বাঁচানো, TRP বাড়াতে মিথ্যা গল্প ফেঁদে ট্রোলের শিকার ‘দিদি নং ১’-এর রচনা ব্যানার্জী

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমরা জানি বর্তমানে কোনো খবর বা ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় একবার যদি ভাইরাল হয়ে যায়, ব্যাস তারপর থেকে শুরু হয়ে যায় ফেসবুক এর বিভিন্ন পেজ থেকে সেই ভাইরাল হওয়া ঘটনাটিকে নিয়ে ট্রোল,মিম ইত্যাদি বানানো। ইদানিং এই ট্রোল ও মিমের সংখ্যা অনেক বেশি বেড়েগেছে। যার জেরে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামের মতো সোশ্যাল এপপ্স গুলির নিউজ ফিড খুললেই দেখা যাবে শুধু এই ট্রোল আর মিম।

আবার অনেক সময় এটাও দেখা গিয়েছে, কোনো ঘটনা কে কেন্দ্র করে সেটিকে নিয়ে ট্রোল বা মিম বানাতে গিয়ে ঠিক মতো ওই ঘটনার সত্যতা যাচাই না করার জন্য এই মিম বা ট্রোল জাতীয় পেজগুলির এডমিন দের শাস্তির স্বীকারও হতে হয়েছে। এমনই এক নজির মিললো, জি বাংলার পপুলার গেম শো দিদি নাম্বার ওয়ান কে নিয়ে ট্রোল করতে গিয়ে ফেসবুকে চরম কটুক্তি শিকার হতে হয়েছে ফেসবুকের ওই পেজকে।

আমরা কম বেশি প্রায় সকলেই জানি, বেশিরভাগ সময়ই দিদি নাম্বার ওয়ানের মঞ্চে দেখা মেলে মানুষের জীবন মরণ লড়াই এর গল্প। আর এরকমই নিজের জীবন সংগ্রামএর গল্প দর্শকদের সঙ্গে ভাগ করে নেন সুন্দরবন থেকে আসা এক অংশগ্রহণকারী জোৎস্না। যার জীবন কাহিনী শুনে হতবাক হয়ে যেতে হয় সবাই তথা এই গেম শোর হোস্ট অভিনেত্রী রচনা বানার্জীকেও। সুন্দরবনের জ্যোৎস্না বলেছিলেন, বাঘের কবল থেকে স্বামীকে বাঁচিয়ে আনার গল্প।

এবং এই ঘটনাটিই কিছু নেটনাগরিক পুরো সত্য যাচাই না করেই বানিয়ে ফেলেছেন একাধিক মিম ও টোল। জানা যায়, জি বাংলার ফেসবুক পেজে চ্যানেলের তরফ থেকে একটি ছোট্ট প্রোমো শেয়ার করা হয়েছিল, আর সেটিকে কেন্দ্র করে বানানো হয়েছে একাধিক মিম। এবং তারপর ঘটনাটির সত্যতা যাচাই না করে ওই ভিডিও টি নিয়ে মিম বানানোর জন্য, ওই পেজ এডমিনকে চরম কটূক্তির শিকার হতে হয়েছে। আবার কিছু নেটিজেন তো সাক্ষ্য-প্রমাণের ওপর ভিত্তি করে, ওই পেজের এডমিনকে আইনি ভয় পর্যন্ত দেখিয়েছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button