‘সঙ্গমে অক্ষম’ রোশনের সঙ্গে আর সংসার নয়, খোরপোষ চেয়ে আইনি নোটিশ ধরালেন শ্রাবন্তী

নিজস্ব প্রতিবেদন: টলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী হলেন শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে অভিনয় দক্ষতায় তিনি জনপ্রিয় হলেও তার বাস্তব জীবন সুখের নয়। তার তৃতীয় স্বামী রোশন সিংহের সাথেও তার ডিভোর্স হল। ষোলই সেপ্টেম্বর অভিনেত্রী আলিপুর আদালতে যান তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা দায়ের করতে। তারপরে টানা ১২ দিন কেটে যাওয়ার পরেও রোশন কোন বিবাহ-বিচ্ছেদের নোটিশ পাইনি বলে দাবি করেন।

একটি সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকারের সময় রোশন বলেন, “শ্রাবন্তীর অনেক বন্ধুর সঙ্গে আমার যোগাযোগ রয়েছে। সেখান থেকেই খবর পেয়েছি শ্রাবন্তী নাকি বলেছে, আমি মোটা। ওজন বেশি হওয়ার জন্য আমি নাকি সঙ্গমে সক্রিয় নই। এ রকম নোংরা অভিযোগও আমাকে শুনতে হচ্ছে। শ্রাবন্তীর মুখ থেকে না শুনলেও যাঁরা আমাকে জানিয়েছেন, তাঁরা আমার বিশ্বস্ত বন্ধু।”

তিনি আরও বলেন, “আমি চোর অপবাদও পেয়েছি। আমি নাকি শ্রাবন্তীর এক কোটি টাকা নিয়ে চলে এসেছি! আমার প্রাক্তন বান্ধবীকে ফোন করে আমার বিষয়ে নানা রকম কথাবার্তা বলা হচ্ছে। ওদের রাজনৈতিক ক্ষমতা বেশি। ওরা চাইলে আমার সঙ্গে নাকি যা খুশি করতে পারে। আমার পরিবারকেও টেনে এনে অসম্মান করা হচ্ছে।প্রাক্তন প্রেমিকার সঙ্গে আমার কোনও যোগাযোগ নেই। ফোন করে তাঁকে বিবাহবিচ্ছেদের কথা বলার মানে কী?”

তবে ১৬ই সেপ্টেম্বর আলিপুর আদালতে পাল্টা বিবাহবিচ্ছেদের মামলা দায়ের করেন শ্রাবন্তী। আদালতে তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন, রোশনের সঙ্গে সংসার করতে তিনি ইচ্ছুক নন। ক্রিমিনাল প্রসিডিউর কোডের ১২৫ ধারা অনুযায়ী আদালতে রোশনের কাছে ভরণপোষণের জন্য টাকা চেয়েছেন শ্রাবন্তী। এই প্রসঙ্গে রোশন আনন্দাবাজারকে জানিয়েছেন, “খোরপোষের মামলার কোনও কাগজপত্র আমার কাছে এসে পৌঁছয়নি। তাই এ বিষয়ে আমি এখনও কিছু বলতে চাই না। যা বলার আমার আইনজীবী বলবেন।”

এই সমস্ত কিছু শোনার পর তিনি যথেষ্ট অপমানিত হয়েছেন বলে মনে করেছেন। তিনি চাইছেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তীর যদি কিছু বলার থাকে, তাহলে সেটা কোটে গিয়ে বলুক। এই রকম ব্যবহার করে পরিস্থিতি জটিল করার কোন মানেই হয়না।

আরও পড়ুন

Back to top button