কেন্দ্র সরকারের নতুন ই-শ্রম/লেবার কার্ড থেকে কোন 21 টি সুবিধা পাবেন সকলে? জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-  কেন্দ্র সরকারের কিছু বিশেষ প্রকল্প বা সুবিধা রয়েছে যা হয়ত অনেক সাধারন মানুষের অজানা। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা বলব এরকমই একটি ই শ্রম কার্ডের কথা। প্রসঙ্গত এই কার্ডের মাধ্যমে একজন শ্রমিক নানান ধরনের সুবিধা পেয়ে থাকেন। শ্রমিকদের তথ্য সঞ্চয় করে রাখার জন্য এই কার্ড বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। তথ্য বলতে শ্রমিকের নাম, কাজের অভিজ্ঞতা প্রভৃতি সম্পর্কে লেখা থাকে। ই শ্রম কার্ড হচ্ছে পুরো ভারতবর্ষের অসংগঠিত শ্রমিকদের নিয়ে গঠিত পোর্টাল।

এটি হবে একজন শ্রমিকের স্বতন্ত্র পরিচয়।এই কার্ডে লগইন করার সাথে সাথেই শ্রমিক এর সকল তথ্য সরকারের কাছে চলে যাবে। তবে এই কার্ডের জন্য শ্রমিকের নির্দিষ্ট কিছু যোগ্যতা থাকা বাঞ্ছনীয়। এই পোর্টালের আওতায় অসংগঠিত শ্রমিক বিভিন্ন সরকারি সুযোগ সুবিধা পাবেন। অসংগঠিত শ্রমিকরা প্রায় ২ লক্ষ টাকার বীমা পাবেন। তবে যদি কোনো শ্রমিক শারীরিক ভাবে অক্ষম হয়ে যায় তাহলে ১ লক্ষ টাকা করে পাবে। ই-শ্রম পোর্টালের জন্য শুধু মাত্র অসংগঠিত শ্রমিক অবেদন করতে পারবেন।

কৃষি কাজে নিযুক্ত শ্রমিক ,কল কারখানায় নিযুক্ত শ্রমিক ,আটো ডাইভার ,চা শিল্পে নিযুক্ত শ্রমিক, হোটেলে নিযুক্ত শ্রমিক, বিল্ডিং বা রাজমিস্ত্রী নিযুক্ত শ্রমিক, অটো মোবাইল নিযুক্ত শ্রমিক, স্বর্ণ কাজে নিযুক্ত শ্রমিক সহ আরো অনেকে। প্রথমত শ্রমিকের বয়স অবশ্যই ১৬ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে হতে হবে। একমাত্র শ্রমিক যদি আয়কর প্রদান না করে থাকেন তাহলে আবেদন করতে পারবেন এই কার্ডের জন্য। এবং অবশ্যই অসংগঠিত শ্রমিক হওয়া প্রয়োজন।

এবার সাধারন মানুষের মনে প্রশ্ন আসতে শুরু করেছে যেই সিম কার্ডের জন্য কিভাবে আবেদন করবেন অনলাইনে সেই পদ্ধতি সংক্ষিপ্ত ভাবে তুলে ধরা হলো নিচের এর পাশাপাশি ঠিক কী কী সুবিধা আপনারা পেতে পারেন এই সিম কার্ডের মাধ্যমে উল্লেখ থাকবে। ই-শ্রম অনলাইন আবেদন করার জন্য প্রথমে গুগলে e-Shram.gov.in ওপেন করবেন। এরপর REGISTER on e-Shram অপশনে ক্লিক করবেন।পরবর্তী পেজটি ওপেন হবে সেখানে আধার কার্ডের সঙ্গে যে মোবাইল নম্বরটি রেজিস্টার আছে সেই মোবাইল নম্বরটি দেবেন এবং ক্যাপচার কোডটি বসিয়ে Sent OTP তে ক্লিক করবেন।

এরপর OTP বসিয়ে Submit করলে পরবর্তী পেজটি ওপেন হবে সেখানে আধার নম্বর দিয়ে “I agree to the terms & conditions for registration under eSHRAM Portal” অপশনে ক্লিক করে Sent OTP ক্লিক করবেন। এরপর OTP বসিয়ে Submit করলে পরবর্তী পেজটিতে আপনার আধার কার্ডের সমস্ত ডিটেলস চলে আসবে এরপর Parsonal Details , Nominee Details, Address, Qualification and Income Details, Occupation Details, Bank Account Details সমস্ত তথ্য দিয়ে Submit করলে ‘e-Shram card’ অবেদন হয়ে যাবে।

এবং ‘e-Shram card’ আপনারা pdf download করেনিতে পারবে। ইস রম কার্ড কে মূল্যায়ন করা হয়েছে দুই ভাগে প্রথমত কাজের ভিত্তিতে এবং দ্বিতীয়ত সামাজিক সুরক্ষার ভিত্তিতে কাজের ভিত্তিতে দেখতে গেলে যে সমস্ত সুবিধা গুলি আপনারা পাবেন সেগুলি হল ১০০ দিনের কাজ পাবেন প্রতিবছর। ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত আর্থিক লোন পাবেন। দীনদয়াল উপাধ্যায় প্রকল্পের মাধ্যমে আপনি আপনার ছেলেমেয়েদেরকে ট্রেনিং করাতে পারেন এবং ট্রেনিং এর শেষে নিশ্চিত চাকরি রয়েছে।

আপনার বয়স যদি ১৮ থেকে ৪৫ বছর হয়ে থাকে তাহলে প্রধানমন্ত্রী কৌশল বিকাশ যোজনা মাধ্যমে আপনি ট্রেনিং করতে পারেন চাকরির এবং এটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে হবে। তার পাশাপাশি আপনাকে একটি সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে যা আপনার ভবিষ্যতে কাজে আসবে। অপরদিকে সামাজিক সুরক্ষার দিক দিয়ে যে মূল্যায়ন করা হয়েছে সেখানে আপনি যে সমস্ত সুবিধাগুলো পাবেন সেটি হল এখানে আপনি প্রধানমন্ত্রী শ্রমযোগী মানধন যোজনা সুবিধা পাবেন।

যেখানে অসংগঠিত শ্রমিকের প্রতি মাসে ৩০০০ টাকা করে পেনশন পাবেন। তার পাশাপাশি ন্যাশনাল পেনশন স্কিম এর সুবিধা রয়েছে। রয়েছে অটল পেনশন স্কিম এর সুবিধা। যেখানে আপনি প্রতিমাসে ৫ হাজার টাকা করে পেনশন পাবেন। এর পাশাপাশি সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা রয়েছে এই প্রকল্পের আওতায় ঠিক এই ধরনের একাধিক প্রকল্প রয়েছে এই কার্ডের মধ্যে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button