কে এই বান্ধবী, যার অ’ন্তর্বাস ও স্যানিটারি প্যাডের মধ্যে লুকিয়ে ড্রা’গস পাচার করছিলেন শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান? রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- এই মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে খবরের শিরোনাম দ-খল করে রয়েছে মাত্র একজন । তিনি হলেন শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ান খান । মুম্বাই থেকে গোয়া আমি একটি জাহাজে মধ্যরাতের পার্টি থেকে গ্রে-ফতার করা হয় তাকে । তার কারণ হচ্ছে সেই পার্টিতে ব্যবহার করা হচ্ছিল নিষিদ্ধ কিছু মাদক এবং এই মাদকচক্রের সাথে সরাসরি ভাবে যুক্ত ছিলেন শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ান খান ।

সেই ঘটনা জানতে পেরে সেই সমুদ্রে জাহাজে হানা দেয় এনসিবির কর্মকর্তারা । সেখান থেকে গ্রে-ফতার করে আরিয়ান খান কে।  তবে শুধুমাত্র যে আরিয়ান খান গ্রে-ফতার হয়েছে তেমন কিন্তু নয় তার সাথে সাথে সে পার্টিতে থাকা আরিয়ান খানের বন্ধু এবং বান্ধবী দের কেউ জে-ল হে-ফাজতে রাখা হয়েছে আপাতত । এবং তল্লাশি চালিয়ে এমনটা জানা গেছে যে আরিয়ান খান এর ব্যাগ থেকে কোনরকম কোন মাদক দ্রব্য না পাওয়া গেলেও তার লেন্সের বাক্স থেকে পাওয়া গিয়েছিল মা-দকদ্রব্য ।

এমনকি তার বন্ধু-বান্ধবীদের জামার সেলাই ব্যাগের হাতল এর মধ্যে এবং মেয়েদের প্যাডের মধ্যে রাখা ছিল ড্রাগস । সেই সূত্রে প্রত্যেককে গ্রে-ফতার করেছে গোয়েন্দা বিভাগের কর্মকর্তারা। তবে আরিয়ান খানের সাথে সাথে এখন একটি চর্চিত নাম হচ্ছে মুনমুন ধামেচা । কে এই মুনমুন ? এমনটা জানা যাচ্ছে যে মুনমুনের স্যানিটারি প্যাডের মধ্যে লুকানো ছিল ড্রা-গস । যদিও এনসিবির জেরা করার ফলে সে কথা স্বীকার করেছে মুনমুন ।

যেমনটা জানা যাচ্ছে ২৩ বছর বয়সী মুনমুন মূলত মডেলিং করেন। মধ্যপ্রদেশের এক বড় ব্যবসায়ী পরিবারের মেয়ে মুনমুন, তবে সেই ব্যবসায়ীর নাম কি সেটা এখনো জানা যায়নি। মডেলিং ও ফটোশুটের দৌলতে বিটাউনে কমবেশি পরিচিত মুনমুন। সোশ্যাল মিডিয়াতেও বেশ সক্রিয় । আপাতত তাকেও রাখা হয়েছে এনসিবির জে-ল হে-ফাজতে । ঘটনার খবর পেয়ে স্পেন থেকে শু-টিং বন্ধ করে দেশে ফিরে আসেন শাহরুখ খান । অপরদিকে গৌরী সেন একা হাতে আদালতের বিষয়টি দেখভাল করার দায়িত্ব নিয়েছেন । এখন শুধু দেখার বিষয় যে আদালত রায় দেয় এদের বি-রুদ্ধে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button