খুব অল্প পুঁজি নিয়েই শুরু করতে পারবেন এই ব্যবসা! সাহায্য পাবেন সরকারের থেকেও! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- করোনা ম-হামা-রীর কবলে পড়ে দেশের অর্থনীতি রীতিমতো মুখ থুবরে পড়েছে। এর অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে কর্মসংস্থান। সেই সময় হাজার হাজার কর্মী ছাঁটাই এর গল্প উঠে এসেছিল। যখন দেশজুড়ে লকডাউন চলছিল তখন একের পর এক নামিদামী সংস্থাগুলি বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল যার ফলে আর্থিক অনটনের মধ্যে দিয়ে পেরোতে হচ্ছিল আমাদের দেশবাসীকে। যদিও এই ঘটনার রেশ এখনো পর্যন্ত সম্পূর্ণ রকম ভাবে কাটেনি ।

কিন্তু এরই মাঝে অনেকে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল যে চাকরি ছেড়ে ব্যবসা করবেন। কি ধরনের ব্যবসা করলে কম সময়ে অধিক পরিমাণে টাকা উপার্জন করা যায় সে ব্যাপারে একটা স্বচ্ছ ধারণা দেয়া হবে আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে। মহামারীর এই কঠিন সময়ে অনেকেই ব্যবসায় মনোনিবেশ করেছেন। কেউ মাছের ব্যবসা করছেন কেউ খাবারের ব্যবসা করছে কেউ আবার শাড়ির ব্যবসা করছে কিন্তু সবাই কোন না কোন ব্যবসার সাথে নিযুক্ত হয়েছেন।

এমনটা মনে করা হয় যে যদি হাল ধরতে হয় তাহলে ব্যবসা করো। কিন্তু আমরা বাঙালিরা ব্যবসায় ততটা মনোনিবেশ করতে পারি না। কিন্তু এই ধরনের ব্যবসা করলে আপনি মাসে এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত উপার্জন করতে পারেন। এবং এই ব্যবসাটি হলো কাঠের ব্যবসা একদম ঠিক শুনেছেন। আপনি যদি এই কাঠ বা আসবাবপত্রের ব্যবসা শুরু করতে পারেন তাহলে কিন্তু সরকারের তরফ থেকে পাবেন সাহায্য। এই কাঠের ব্যবসা শুরু করতে গেলে একটি ফিক্স ক্যাপিটাল এর প্রয়োজন হয়।

এই ব্যবসা শুরু করতে হলে মোট ব্যাঙ্কিং ক্যাপিটালের প্রয়োজন ৫.৭০ লক্ষ টাকা। পাশাপাশি ফিক্সড ক্যাপিটালের প্রয়োজন ৩.৬৫ লক্ষ টাকা। যদিও চিন্তার কোন কারন নেই কারন এই বিপুল পরিমাণ অর্থের প্রায় ৮০ শতাংশ পর্যন্ত আপনি সরকারি সাহায্য পেতে পারেন।খুচরা এবং পাইকারি ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারের তরফ থেকে একটি যোজনা রয়েছে। তবে এই ব্যবসায় মুদ্রা যোজনার সাহায্য নিতে হলে আপনার কাছে থাকতে হবে ১.৮৫ লক্ষ টাকা। যা ব্যবসা শুরু করার সময় আপনাকে দেখাতে হবে। তবেই আপনি সরকারি সাহায্য হিসেবে পেয়ে যাবেন ৭.৪৮ লক্ষ টাকা কম্পোজিট লোন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button