জর নাকি করোনা ? কিভাবে জানবেন? জেনে নিন উপায়

corona virus or firal fever
corona virus or firal fever
Advertisement

করোনা ভাইরাসের প্রকোপে গোটাবিশ্বজুড়ে আতঙ্কে মানুষ। কিন্তু ভারতে এখন এমন একটা মরসুম, যখন সাধারণ জ্বর হয়ে থাকে ঘরে ঘরে। আর অনেকেই সাধারণ অন্যান্য জ্বর আর করোনা ভাইরাসকে গুলিয়ে বাধাচ্ছে বিপত্তি।তাই করোনা ভাইরাস এবং সাধারন জ্বরের মধ্যে পার্থক্য কিভাবে করবেন? চলুন জেনে নেই-

জর নাকি করোনা ? কিভাবে জানবেন? জেনে নিন উপায়

জ্বর ,কাশি ,শ্বাসকষ্ট:- মোটামুটিভাবে যা দেখা গিয়েছে তাতে করোনা ভাইরাস এর মূল উপসর্গ গুলির মধ্যে রয়েছে জ্বর শুকনো কাশি এবং শ্বাসকষ্ট।যেহেতু এই ভাইরাস শ্বাসনালীতে ক্ষতি করে তাই শুকনো কাশি হয়ে থাকে। এই ভাইরাস শ্বাসনালীর কোষ গুলোকে নষ্ট করে দেয়। তাই শ্বাসকষ্টের অন্যতম উপসর্গ।
যেহেতু এটি একটি ভাইরাস তাই সবার আগে ভাইরাল ইনফেকশনের জ্বর আসে। 80 শতাংশ ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে লক্ষণগুলি সেরকম প্রকট নয়। এমনকি আদেও লক্ষণ নেই এরকমটা ও দেখা গিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ওজন বেড়েই চলেছে এই লকডাউন, জেনেনিন এক্ষেত্রে কি করবেন

সাধারণ জ্বরের লক্ষণ:- এই সময়ের আবহাওয়া পরিবর্তনের জন্য যে জ্বর আসে তাদের সাধারণভাবে সবার আগে সর্দি হতে যায় নাক দিয়ে জল পড়ার প্রবণতা তৈরি হয়। করুণা আক্রান্তদের ক্ষেত্রে খুব কম ই নাক দিয়ে জল পড়ার লক্ষণ দেখা গিয়েছে।তাই সর্দি থাকলে সাধারণ জ্বর হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি ।

গলা ব্যথা:- গলা ব্যথা মানেই করোনা নয় ঠান্ডা জল খাওয়া থেকেও হতে পারে ব্যথা তাই শুধুমাত্র গলায় ব্যথা থাকলে অযাথা আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই।

আরও পড়ুনঃ  করোনা আবহে সর্দি, কাশি ও জ্বর থেকে বাঁচতে রোজ খান কাঁচালঙ্কা !

এই সময় ওয়েদার চেঞ্জ এর জন্য জ্বর হওয়া খুবই স্বাভাবিক একটি সমস্যা। তাই জ্বর হলে অযথা আতঙ্কিত হবেন না।সাধারণ সর্দি জ্বর হলে করোনা ভাইরাস এর পরীক্ষা করানো প্রয়োজন নেই বলে মনে করেছেন চিকিৎসকরা। যদি জ্বরের সঙ্গে শ্বাসকষ্টের সমস্যা থাকে তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের কাছে যেতে হবে।আর যদি অন্যান্য ধরনের জ্বর এর থেকে বেশি সময় ধরে এই জ্বর শরীরে থাকে তাহলে অবশ্যই বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে হবে।

আরও পড়ুনঃ কিভাবে কমাবেন ব্লাড সুগার ঘরোয়া উপায়ে? জেনে নিন 

আর অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। স্যানিটাইজার ,মাস্ক ব্যবহার করুন। যতটা সম্ভব ভীড় জামায়েত স্থান এড়িয়ে চলুন।

Advertisement