বাড়িতে বসে মোটা হয়ে যাচ্ছেন ? আজই করুন এই কাজ গুলি

Advertisement

কোরনা আবহে লকডাউনের দিনগুলি জীবনের কিছু বাঁধা নিয়মকে পরিবর্তন করে দিয়েছে। খাওয়া দাওয়া ও ঘুমেরও পরিবর্তন ঘটেছে অনেকেরই।‌ অনেকেই দেরি করে ঘুমাতে যাচ্ছেন রোজ রাতে। কিন্তু আপনি কি জানেন এই দেরি করে ঘুমাতে যাওয়া কতটা ক্ষতিকর ?

বাড়িতে বসে মোটা হয়ে যাচ্ছেন ? আজই করুন এই কাজ গুলি

গবেষকরা জানিয়েছেন, রোজ রাত করে ঘুমানোর ফলে শরীরের অভ্যন্তরে বিভিন্ন রকম পরিবর্তন ঘটে। যার প্রভাবে রক্তচাপ বাড়তে থাকে। এর ফলে শরীরে মারাত্মক ক্ষতির আশঙ্কা থাকে।

ঘুম কম হলে ওজন বাড়ার আশঙ্কা থাকে। ২০১৪ সালে হওয়া এক স্টাডিতে জানানো হয়, দিনে কমপক্ষে ৬ ঘন্টা না ঘুমালে ওজন বাড়ার আশঙ্কা থাকে।

আ্যডভান্স ইন নিউট্রিশন পত্রিকায় প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে বিজ্ঞানীরা স্পষ্ট জানায়, রোজ রাতে দেরি করে ঘুমাতে যাওয়া এবং সকালে দেরি করে ওঠা ব্যক্তিদের হার্টের অসুখে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই।

এমনকি ডায়াবেটিস টাইপ 2 হওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়।

বিজ্ঞানীরা জানান, এই ধরনের জীবন যারা করেন, তারা মদ্যপান ও তেল মসলা যুক্ত খাবারের প্রতি বেশি আসক্ত হন। এবং রাত করে খাওয়া দাওয়া করার ফলে শরীরে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে যায়।যেখানে রাতে শরীরে গ্লুকোজের পরিমাণ সবথেকে কম থাকা বাঞ্ছনীয়। ফলে মারাত্মক ক্ষতির আশঙ্কা থাকে।

রোজ রাতে দেরি করে ঘুমাতে যাওয়ার ফলে ব্রেনের পাওয়ার কমে। ভুলে যাওয়ার প্রবণতা বাড়ে।

2005 সালে হাওয়া একটি গবেষণা থেকে জানা যায়, রোজ দেরি করে ঘুমাতে যাওয়া ব্যক্তিরা মানসিক অবসাদের শিকার হন।

Advertisement