বেশি রাত জাগে দেরি করে ঘুম থেকে ওঠার বিপদ কি জানেন? তাহলে জেনে নিন

Do you know the danger of waking up late at night Then find out
ছবিঃ গুগল
Advertisement

আমরা সবাই জানি রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমোলে এবং ভোরবেলা তাড়াতাড়ি উঠলে শরীর স্বাস্থ্য ভালো থাকে। কিন্তু বর্তমানে এই ব্যস্ততাপূর্ণ জীবন যাপনে সেই তাড়াতাড়ি ঘুমোতে যাওয়া এখন সবার কাছে অতীত। সারাদিনের কিছু বাকি কাজ শেষ করতে অথবা আগামী দিনের কাজ কিছুটা এগিয়ে রাখতে বা অন্য যেকোন কাজে মানুষ রাত জাগতেই থাকে। এর ফলে সকালেও তাড়াতাড়ি ওঠা সম্ভব হয়না।

প্রতিদিন এই একই জিনিস নিয়মিত হতে থাকলে এটি একটি অভ্যাসে পরিণত হয়ে যায় এবং যার ফলে বিভিন্ন শারীরিক ও মানসিক উপরে যান যারা ইতিমধ্যেই অভ্যাসে পড়েছেন তাদের জন্য এটা ত্যাগ করা একটু কষ্টকর কিন্তু একেবারে অসম্ভব নয়, একটু চেষ্টা করলেই নিজের এই অভ্যাসটি কে পাল্টে ফেলা যায় যুক্তরাষ্ট্রের একটি এক্সপেরিমেন্টে দেখা গেছে যে সকালে তাড়াতাড়ি ওটা ব্যক্তিদের থেকে রাতজাগা মানুষের জীবন সীমা একটু কম হয়। যারা বেশি রাত জাগে ও সকালে দেরিতে ঘুম থেকে উঠে তারা বিভিন্ন শারীরিক ও মানসিক জটিলতা শিকার হয়।

যারা এই অভ্যাসে জড়িয়ে পড়েছেন তাদেরকে এই অভ্যাসটি ছাড়ানোর জন্য কিছু টিপস দেয়া হলো। বলা হয় রাতে ঘুমানোর আগে বিছানায় যাওয়ার আগে যদি আপনি হালকা উষ্ণ গরম জলে হাতমুখ ধুয়ে নেন তাহলে সেটা আপনার শরীরে একটা ফ্রেশফিল আনবে ফলে বিছানায় গেলে সহজেই আপনার ঘুম চলে আসবে।

এছাড়াও ঘুমানোর আগে আপনি এক গ্লাস গরম দুধও খেতে পারেন। রাতে গরম দুধ খেলে ঘুম ভালো হয়। বিছানাতে শুয়ে যদি আপনার ঘুম না আসে তাহলে হালকা গান শুনতে পারেন বা কোন বই পড়তে পারেন।

বিছানায় যাওয়ার অন্তত ২ ঘণ্টা আগে রাতের খাবার খেয়ে নিন এবং একটু পায়চারি করুন। শোয়ার সময় পাশে মোবাইল টিভি বা কোনো ইলেকট্রনিক জিনিস অন না রাখাই ভালো এসব ডিভাইস থেকে আসা রশ্মি মস্তিষ্কে বিরূপ প্রভাব ফেলে ফলে ঘুম আসতে দেরি হয়।

অফিসের কোন কাজ বাড়িতে রাত জেগে না করাই ভালো রাত জেগে কাজ করলে সেটি একটা ভয়ঙ্কর অভ্যাসে পরিণত হয় যেটা একেবারেই ভালো জিনিস নয়। বর্তমান যুগের যুবক সম্প্রদায় রাত জেগে চ্যাটিং, ভিডিও দেখা, গেম খেলা ইত্যাদি করতে অর্ধেক রাত কাটিয়ে দেয়। ঘুম ভাঙ্গে অনেক দেরীতে এতে শারীরিক সমস্যা দেখা দেয় এবং এতে শুধু ঘুমের সমস্যাই না এতে আপনার চোখ ও ত্বকেরও ক্ষতি করে

Advertisement