‘হিন্দি বলতে পারেন না! বাংলাদেশে থাকেন?’ জনপ্রিয় পরিচালককে অপমান ডেলিভারি বয়ের

কলকাতা হান্ট ডেস্কঃ “আমি বাংলায় গান গাই, আমি বাংলার গান গাই”- বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। এই ভাষাতে যেমন আমরা গান গাই, কথা বলি তেমনই এই ভাষার জয়গানও করি। বাংলা আমাদের প্রতিবাদের ভাষা, প্রেমের ভাষা। এই ভাষাতেই লেখালেখি করে বিখ্যাত হয়েছেন কতো মানুষ। তেমনই এই ভাষাকে সুমিষ্ট ভাষা হিসেবেও আখ্যায়িত করা হয়। এই ভাষা আমাদের প্রাণের ভাষা। এই ভাষার অপমান আমরা সহজে মেনে নিই না।

আরও খবরঃ- শরীর চর্চার সাথেই এবার নতুন পেশায় পা দিতে চলেছেন গায়িকা ইমন চক্রবর্তী!

তবে এই বাংলাতে কথা বলার জন্যই অপমানিত হলেন ‘ট্রাইপড’-এর কর্ণধার সত্রাজিৎ সেন । বেশ কয়েকবছর আগে ‘মাছ, মিষ্টি অ্যান্ড মোর’ নামক একটি সিনেমা ভাইরাল হয়েছিল। সেই সিনেমার পরিচালক ছিলেন ট্রাইপড’-এর কর্ণধার সত্রাজিৎ সেন। কয়েকদিন আগে সত্রাজিৎ সেন একটি অ্যাপ থেকে চশমা কেনেন। কিন্তু চশমার পাওয়ারে ভুল আসে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি চশমা ফেরত নেওয়ার জন্য অ্যাপটিতে জানা। এই অ্যাপটির সংস্থা একটি থার্ড পার্টি সংস্থার মাধ্যমে লজিস্টিকের কাজ করেছিল। এখানে একজন তাঁর সাথে হিন্দিতে কথা বলেন। কিন্তু তিনি সমস্ত কথা হিন্দিতে বুঝিয়ে বলা তাঁর পক্ষে অসম্ভব ছিল। তাই তিনি বাংলাতে কথা বলেন। আর এতেই সৃষ্টি হয় বিপত্তি।

আরও খবরঃ- অষ্টম শ্রেণী পাশে গ্রূপ-ডি কর্মী নিয়োগ, আবেদন চলবে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত

এরপর একদিন এই সংস্থার ডেলিভারি বয় তাঁকে দুপুর একটা নাগাদ ফোন করে বলেন যে, চশমা ফেরত নিতে আসবেন তিনি। সত্রাজিৎ তাঁকে বলেন, চশমা ফেরৎ নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এই সমস্ত কথা তিনি বাংলাতেই বলেন কিন্তু হঠাৎই ওই ভদ্রলোক বলেন, তাঁর হিন্দি বলার জন্য কি সমস্যা হচ্ছে? সত্রাজিৎ কি বাংলাদেশে থাকেন? কথাটি শুনে সত্রাজিৎ শান্ত গলাতেই বলেন, ওই ডেলিভারি বয়ের এমন বক্তব্যের উদ্দেশ্য কি? তিনি কোথায় থাকেন? ডেলিভারি বয় সাথে সাথে জানান, তাঁর নাম অঙ্কুর। তিনি বাইরে থেকে এসেছেন এখানে কাজ করার জন্য। ডেলিভারি বয় তাঁকে উপদেশ দেন ভারতে যখন থাকেন সত্রাজিৎ , তখন তাঁর হিন্দিটা বোঝা উচিত।

আরও খবরঃ-  আজকের সোনা-রুপো, পেট্রোল-ডিজেল ও গ্যাসের বাজারদর কত চলছে জেনে নিন

উক্ত ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে সত্রাজিৎ সমস্ত বিষয় পোষ্ট করেন স্যোশাল মিডিয়ায়। ট্যাগ করা হয় ওই সংস্থাকে। এরপর সংস্থা থেকে ফোন করেন সত্রাজিৎকে। সত্রাজিৎ স্পষ্ট জানান তিনি বাংলাতেই কথা বলবেন। এরপর তাঁর সাথে বাংলাতেই কথা বলা হয়। সত্রাজিৎ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন তারা যেন কোনোপ্রকার ডিল বা প্রলোভন না দেখান তাঁকে, এতে কোনো উপকার হবে না। কারণ তিনি নিজেই সমস্ত সম্পর্ক ত্যাগ করবেন এই সংস্থার সাথে। উক্ত ঘটনাটিতে পাশে দাঁড়িয়েছেন আবীর চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে পরমব্রত চ্যাটার্জী, সৃজিত মুখার্জী সকলেই।

আরও পড়ুন

Back to top button