বাদশাহর ছেলে হয়েও রেহাই নেই! শেষ পর্যন্ত জেলেই ঠাঁই হল শাহরুখ পুত্র আরিয়ানের

নিজস্ব প্রতিবেদন: সম্প্রতি ভারতের কয়েকটি বহুল চর্চিত খবরের মদ্ধ্যে অন্যতম মাদক মামলায় বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ান খানের নাম জড়ানো। নেট দুনিয়ায় এটি নিয়ে সমালোচনার কোনও অন্ত নেই। যেদিন থেকে মুম্বাইয়ের একটি প্রমোদতরী থেকে মাদকসমেত হাতেনাতে ধরা পড়েছে তার পর বহুদিন কেটে যাওয়ার পরও কোনোমতেই রেহাই পাচ্ছেন না শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান খান। তার উকিল অন্তর্বর্তী জামিনের জন্য বহুবার আবেদন করলেও আদালত তাতে আমল করেননি।

সম্প্রতি গত বৃহস্পতিবা আদালত এনসিবি আবেদন অনুযায়ী আরিয়ানকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে। আরিয়ানের আইনজীবী কোনো উপায় না পেয়ে পরবর্তী জামিনের আবেদন করেন। এখন ভবিষ্যতে কি হবে সেটা দেখার বিষয়।তবে আরিয়ান একা নয় সঙ্গে তার দুই সঙ্গী আরবাজ শেঠ মার্চেন্ট এবং মুনমুন ধমেচার জামিনের আর্জিও নামঞ্জুর করে দিয়েছে আদালত।

আরিয়ানের জামিন নামঞ্জুর করার দাবির মূল কারণ হিসেবে সরকারি আইনজীবী তর্ক দিয়েছেন আরিয়ানকে ছেড়ে দিলে তার মোবাইল থেকে পাওয়া যা কিছু চ্যাট বা হোয়াটসঅ্যাপ কথোপকথন ইত্যাদি সব তথ্য নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তার পরেই আরিয়ানের আইনজীবী সতীশ মানশিণ্ডে তাকে ডিফেন্ড করতে বলেন সেইসব কেবলই সাদামাটা ফুটবল নিয়ে কথোপকথন।

তবে এনসিবির আইনজীবী অনিল সিংহের দাবি তা নেহাত ফুটবল সম্মন্ধে নয় বরং সাংকেতিক ভাষায় কোন মাদকচক্রের সাথে কথোপকথনের প্রমান। আর তা খতিয়ে দেখার জন্যই এই ১৪ দিনের জেল হেফাজত। অন্যদিকে আরিয়ানের আইনজীবী সতীশ মানশিণ্ডে বলেন, আরিয়ানের প্রভাবশালী পরিবার মানেই তারা তথ্যপ্রমাণ লোপাট করার চেষ্টা করবে সেটা ভাবা ভুল। তবে সব মিলিয়ে মূল কথা হলো কিং খানের পুত্র আরিয়ান খানের জামিন মেলার এখনো দেরি আছে। কিংবা আমরা বলতে পারি বেশ কঠিন। এবার ভবিষ্যতে কি হয় সেটাই দেখার।

আরও পড়ুন

Back to top button