Sarbojaya: জোগাড় হল না চিকিৎসার খরচ! দশমীর দিনই কি মুছে যাবে ‘সর্বজয়া’র সিঁথির সিঁদুর?

দেবশ্রী রায় বহুদিন পর ফিরেছেন টিভি পর্দায়। তবে সিনেমায় নয়, তাঁকে দেখা যাচ্ছে ধারাবাহিকের পর্দায়। জি বাংলায় ‘সর্বজয়া’ ধারাবাহিকে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে দেবশ্রী রায়কে। স্নেহাশীষ চক্রবর্তী এই ধারাবাহিকের প্রযোজক। এই ধারাবাহিকটি একজন বিবাহিতা নারীর গল্প। যে নারী সংসারের সমস্ত দায়িত্ব সামলেও নিজের শখকে বাঁচিয়ে রাখতে চায়। সমস্ত দিক সামলে যে হয়ে উঠেছে দশভূজা।

এই ধারাবাহিকে এসেছে নতুন মোড়। সর্বজয়া বরাবর আনন্দ করতে ভালোবাসে। সেই মতো দশমীর দিন সর্বজয়ার শ্বাশুড় বাড়িতে পারিবারিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। এই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিল পরিবারের সবাই। সেই মতো সর্বজয়াও এই অনুষ্ঠানে নাচ করছিল। কিন্তু সর্বজয়ার মাথার ওপর থাকা একটি ঝাড়বাতি সর্বজয়ার মাথায় পরতে যাচ্ছিল।

আর নাচ করতে করতে সর্বজয়ার খেয়ালও নেই যে তার মাথার ওপর ভেঁঙে পরতে চলেছে ভাঁঙা ঝাড়বাতি। কিন্তু সর্বজয়ার স্বামীর নজর বউয়ের দিকে রয়েছেই। তাই তার স্বামীই বিষয়টি খেয়াল করে সর্বজয়াকে বাঁচানোর চেষ্টা করে। সর্বজয়া বেঁচে যায়,কিন্তু বিপদ ঘটে সর্বজয়ার বরের।

আসলে সর্বজয়ার স্বামী সবসময় সর্বজয়াকে সমর্থন করেন। সর্বজয়ার পাশে সবসময় থাকেন তাঁর স্বামী। তাই বাড়ির বাকি সদস্যরা সর্বজয়াকে কিছুই বলতে পারেন না। তাই বাড়ির কিছু সদস্যরা মিলে পরিকল্পনা করে সর্বজয়াকে বিপদে ফেলতে চায়। কিন্তু উল্টে বিপদ হয় সর্বজয়ার স্বামীর। গুরুতরভাবে আহত হন তিনি। আর এই চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন অনেক টাকার। কিন্তু পরিবারের লোক টাকা দিতে রাজি হয়নি।

কারণ তাদের কথামতো এই অল্প সময়ে নাকি তারা টাকা জোগাড় করতে পারবেন না। কিন্তু টাকা জোগাড় না হলে চিকিৎসাও হবে না সর্বজয়ার স্বামীর। সর্বজয়াই বা কি করে অতগুলো টাকা জোগাড় করবে। তাহলে দশমীর দিনেই কি ঘটতে চলেছে বড়ো কোনো অঘটন? নাকি মা দুর্গা অক্ষত রাখবেন সর্বজয়ার সিঁদুর? এটিই এখন দেখার বিষয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button