নিষ্ঠাভরে নিয়ম মেনে করুন গজানন গণেশের পূজা, সংসার ভরে উঠবে ধনরত্ন এবং শ্রীবৃদ্ধিতে

নিষ্ঠাভরে নিয়ম মেনে করুন গজানন গণেশের পূজা, সংসার ভরে উঠবে ধনরত্ন এবং শ্রীবৃদ্ধিতে
ছবিঃ গুগল

গণপতি বাপ্পা মোরিয়া’– লাড্ডু দিলেই খুশি হয়ে যান ভগবান গণেশ সবার আগেই গণপতি বাপ্পার পূজা হয়ে যায় গণপতি বাপ্পা তার বাহন ইঁদুরকে নিয়ে চলে আসেন খুব তাড়াতাড়ি গণেশ কে সন্তুষ্ট করতে পারলে আপনার শ্রী বৃদ্ধি বাড়বে আপনার বাড়িতে সুখ শান্তি বজায় থাকবে গণপতি বাপ্পা সমগ্র ভারতবর্ষে পূজিত হন এবং মহানগরী মুম্বাইতে প্রতিবছর গণপতি বাপ্পার আরাধনা করা হয় ধুমধাম করে।

মহাদেব মহাদেব শিব এবং মাতা দুর্গার এক পুত্র হলেন গণপতি বাপ্পা গণেশ তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের জন্য প্রসিদ্ধ তবে তার পিতার রাগের কারণ এর জন্য তাজে মুন্ডচ্ছেদ হয়েছিল এবং সেখানে হাতির শুঁড় যুক্ত মুন্ডু লাগানো আছে যেটি সর্বাধিক পরিচিতি লাভ করেছে।।

গণেশ ঠাকুরকে বিজ্ঞানের পৃষ্ঠপোষক, বুদ্ধি ও জ্ঞানের দেবতা রূপে পূজা করা হয়। যেকোনো রকম শুভকার্য করার জন্য উৎসব-অনুষ্ঠান শুরুতে গণেশের পুজো সম্পন্ন হয় শারদীয়া আসার বেশ কয়েকদিন আগে মর্তে চলে আসেন গণেশ । এখন কলকাতাতেও ধুমধাম করে পালন করা হয় গণেশ চতুর্থী ।

দেবতার আরাধনা তে মেতে ওঠে কলকাতাবাসী গণপতি বাপ্পা কে প্রশ্ন করার জন্য কুইন্টাল কুইন্টাল লাড্ডু বিক্রি হয়ে যায় কয়েক ঘন্টার মধ্যেই মন দিয়ে গণেশের পূজা করলে আপনার সকল মনস্কামনা হয়ে যাবে পূর্ণ তাই ভক্তিভরে গনেশ পূজা করুন ভগবান দুহাত তুলে আপনাকে আশীর্বাদ করবে ।

আমাদের আমাদের মধ্যে কেউ একটু মোটা হলেই তাকে বলা হয় গণেশ যেহেতু দেবতার অনেক চেহারায় মারি এবং তিনি খেতে খুবই ভালোবাসেন গণেশ ঠাকুর লাড্ডু এবং মধু খেতে খুব ভালোবাসেন আপনি যদি ঠাকুরকে লাড্ডু বাবদ প্রদান করেন তাহলে আপনার জীবন হতে চলেছে সুখ ও আনন্দের ভরা তাতে ঠাকুর আপনার প্রতি প্রসন্ন হবেন । গণেশ ঠাকুরের কিন্তু মূর্তি পূজাই প্রচলিত আছে।