লক্ষীবারে ফের সুখবর এলো মধ্যবিত্তদের জন্য, রেকর্ড সংখ্যক কমলো সোনা এবং রুপোর দাম

নিজস্ব প্রতিবেদন:- মোটামুটি ফেব্রুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে মারাত্মক রূপে পতন লক্ষ্য করা যাচ্ছে হলুদ ধাতুর দামে। নতুন অর্থবর্ষ শুরু হওয়ার পরেও সোনার দামের এই পতন এখনো অবধি অব্যাহত রয়েছে।যদিও এখনও পর্যন্ত এই দামের পতনের কারণ হিসেবে নির্দিষ্ট কোন বিষয় জানানো হয়নি বিশেষজ্ঞদের তরফ থেকে। তবে অর্থনীতিবিদদের দাবি,ভারতসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে করোনাভাইরাস এর দ্বিতীয় ঢেউ সহ অন্যান্য বেশকিছু কারণ প্রভাব ফেলছে হলুদ ধাতুর উপর। বিশেষত আমেরিকার রাষ্ট্রপতি হিসেবে জো বাইডেন শপথ গ্রহণ করার পর থেকেই সেদেশের আর্থিক প্যাকেজ নিয়ে সম্ভাবনা রয়েছে। পাশাপাশি জার্মান ব্যাংক সহ কিছু বিশ্ব নীতি ধাতুর উপর নিজস্ব প্রভাব বিস্তার করছে। তাই আপাতত যতদিন পর্যন্ত না এই অবস্থা স্থিতিশীল জায়গায় পৌঁছচ্ছে ততদিন সোনার দামের ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই।তবে সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় সোনার দামের পতনের ফলে একটুও চিন্তার ছাপ দেখা যায়নি ব্যবসায়ীদের কপালে। এই প্রসঙ্গে ব্যবসায়ীদের একাংশ জানিয়েছেন, সোনার দাম কমে যাবার ফলে সাধারণ ক্রেতাদের কাছে সহজলভ্য হয়ে উঠেছে এই ধাতু। এতদিন পর্যন্ত এই ধাতু শুধুমাত্র উচ্চ মধ্যবিত্ত এবং উচ্চবিত্ত মানুষদের মধ্যেই ক্রয় – বিক্রয় চলত। কিন্তু বর্তমান বছরে এই পরিস্থিতির অনেকটাই পরিবর্তন ঘটেছে।

লক্ষীবারে ফের সুখবর এলো মধ্যবিত্তদের জন্য, রেকর্ড সংখ্যক কমলো সোনা এবং রুপোর দাম

আরও পড়ুনঃ বিজেপিকে যত তাড়াতাড়ি পারেন সরান, দেশকে বাঁচান; জনগণের কাছে আর্জি মমতার

সাধারণত ভারতে বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে বেশিরভাগ জায়গাতেই সোনার প্রচলন রয়েছে।এমনকি প্রাচীনকালে ভারত রাজতান্ত্রিক দেশ ছিল। সেই সময়তেও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সোনার মুদ্রার প্রচলন থাকতো। এমনকি বড় বড় অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে সোনা উপহার দেওয়ারও চল ছিল। কিন্তু এখন সময় অনেকটাই পাল্টে গিয়েছে।বর্তমান সময়ে এই ধাতুর মূল্য এমন এক জায়গায় এসে পৌঁছেছে যা সাধারণ মধ্যবিত্তদের ধরাছোঁয়ার বাইরে। এমতাবস্থায় সোনার বিকল্প হিসেবে অন্যান্য ধাতু গুলিকে ব্যবহার করা হয়। তবে যদি আপনি সোনার প্রতি বিশেষভাবে আকর্ষিত হয়ে থাকেন তবে এই মূল্যহ্রাসের সুযোগে চটজলদি নিকটবর্তী গহনার দোকান এর সাথে যোগাযোগ করে সোনা খরিদ করে নিতে পারেন। তবে অবশ্যই সোনা ক্রয় করার আগে এর হলমার্কসহ অন্যান্য বিশুদ্ধতা যাচাই করে নেবেন। সোনা এমন একটি ধাতু যা বিপদের দিনে মানুষকে অত্যন্ত সাহায্য করে থাকে। সাধারণত যে দামে এটিকে কেনা হয় সেই দামে বিক্রি করাও যায় না। সুতরাং বাণিজ্যিক দিক থেকে এই ধাতুর মূল্য অত্যধিক।এবার আসুন দ্রুত একনজরে আমাদের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আজকের বাজার দর জেনে নেওয়া যাক।

লক্ষীবারে ফের সুখবর এলো মধ্যবিত্তদের জন্য, রেকর্ড সংখ্যক কমলো সোনা এবং রুপোর দাম

আরও পড়ুনঃ Covaxin-র দ্বিতীয় ডোজ নিলেন মোদী

আজ লক্ষীবারে ভারতীয় বাজারে সোনার দাম কমলেও আন্তর্জাতিক বাজারে এই ধাতুর মূল্য অপরিবর্তিত অবস্থায় রয়েছে। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে এক আউন্স সোনার দাম দাঁড়িয়েছে ১,৭৩৭.০২ ডলার।এক আউন্স সোনা আপাতত ১,৭৬০ ডলারে বাধা পাচ্ছে এবং সহায়তা পাচ্ছে ১,৬৮০ ডলারে। আজ আন্তর্জাতিক বাজারে এক আউন্স রুপোর দাম ০.৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২৫.০৩ ডলার। বৃহস্পতিবার ভারতীয় বাজারে এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম সোনার দাম ০.১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৬ হাজার ৩২০ টাকা। সোনার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কমেছে রুপোর দাম।এক কেজি রুপোর দাম ০.৩৪ শতাংশ কমে হয়েছে ৬৬ হাজার ৪০৫ টাকা। প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি সোনার দাম ভারতের বিভিন্ন জায়গায় ভিন্ন রকমের হলেও, রুপোর দাম সমগ্র ভারতে একই থাকে। আপনি যদি সোনা কিনতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে আজকেই নিকটবর্তী গহনার দোকানে যোগাযোগ করতে পারেন।কারণ পরবর্তীতে কখন এই ধাতুর দর ঊর্ধ্বমুখী হয়ে যাবে তা নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না।