মন্ত্র উচ্চারণের সময়ে খেয়াল রাখুন এই ৬টি বিষয়

Here are 7 things to keep in mind when chanting mantras
Here are 7 things to keep in mind when chanting mantras

বাংলা খবর ডেস্ক:  মন্ত্র বিপুল শক্তির সন্ধান দিতে সমর্থ। সেহেতু মন্ত্র উচ্চারণের কালে কিছু বিষয়ে খেয়াল রাখা উচিত। অন্যথায় হিতে বিপরীত ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে বলেই জানায় বিবিধ ভারতীয় শাস্ত্র।

মন্ত্রোচ্চারণের কালে তাই কয়েকটি বিষয়ে লক্ষ রাখা বিশেষ ভাবে প্রয়োজন

• মন্ত্র সর্বদাই সঠিক ভাবে উচ্চারিত হওয়া উচিত। কারণ মন্ত্র যতটা না তার অর্থের উপরে নির্ভরশীল, তার চাইতেও অধিক পরিমাণে তা ধ্বনি-নির্ভর।

• মন্ত্রোচ্চারণে ছেদ বাঞ্ছনীয় নয়। কারণ মন্ত্র এক বিশেষ শব্দতরঙ্গে উচ্চারিত হওয়ার কথা, তাতে ছেদ ঘটলে তা ফলশূন্য হয়ে যায়।

• কোনও মন্ত্রই একবার উচ্চারণে ফলদায়ী হয় না। ১০৮ বা ১০০৮ বার মন্ত্রোচ্চারণের যে বিধান প্রচলিত রয়েছে, তার পিছনেও এই যুক্তিই কাজ করে। বার বার মন্ত্রোচ্চারণকে সংহত রাখে জপমালা। ইসলাম বা খ্রিস্টধর্মেও তসবি বা রোজারির ব্যবহার লক্ষণীয়।

• মন্ত্র ধ্যানের সহায়ক। সেই কারণে মন্ত্রোচ্চারণের কালে চোখ বন্ধ রাখতেই নির্দেশ দেন সদগুরু। এতে মনঃসংযোগ বাড়ে। মন্ত্র, আক্ষরিক অর্থে যার কাজ মনকে ত্রাণ করা, সফল হয়।

• মন্ত্রোচ্চারণ কখনওই খুব উচ্চৈস্বরে করা উচিত নয়। এতে কাজটি উচ্চারণ-সর্বস্ব হয়ে পড়ে। মন্ত্র উচ্চারণের স্বর হওয়া উচিত মন্দ্র, নিমগ্ন।

• অশান্ত অবস্থায় কখনওই মন্ত্রোচ্চারণ বিধেয় নয়। এতে শারীরিক ক্ষতির সম্ভাবনাও থাকে।