আবারও উত্তপ্ত ইন্দো-চিন সীমান্ত, জেনে নিন আবার কি হলো

20200803_110702
Advertisement

প্রায় ৪৫,০০০ চীনা সেনা এখনও আমাদের মাটিতে অর্থাৎ আমাদের বিরুদ্ধে সামনের পদে মোতায়েন রয়েছে বা আকসাই চিন এলাকায় রিজার্ভে রয়েছে। যুদ্ধ ও নজরদারি উভয়ই ট্যাঙ্ক, পদাতিক যোদ্ধা যানবাহন, মাঝারি আর্টিলারি, বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বা মানবিহীন বিমানবাহী যানবাহনগুলির কোনও গ্রহণযোগ্যতা নেই।

এই পরিস্থিতিতে রবিবার ফের দু’দেশের সেনা পর্যায়ে আলোচনায় বসা হয়েছে। সকাল ১১টা থেকে সেনা কমান্ডস্তরে চিনের মল্ডোতে বৈঠক শুরু হয়েছে। এই নিয়ে পাঁচবার সেনাস্তরে দু’দেশ বৈঠকে বসল।

চীনারা এখনও কিছুই প্রত্যাহার করেনি, তারা তাড়াহুড়ো করে পিছু হটছে না। ভারতীয় দিকে বাহিনীর একটি আয়না মোতায়েন রয়েছে। আমাদের অঞ্চলগুলিতে আর তাকাতে হবে না, সালামি কাটা হবে না। তবে সমস্যাটি হ’ল চীনারা এখনও আমাদের দেশে দখলটি স্থায়ী করার লক্ষ্যে প্রতিটি উদ্দেশ্য নিয়ে বসে আছে।

এই মুহুর্তে অনুপ্রবেশ এবং প্রত্যাহারের অবস্থা কী?২৬ শে জুলাইয়ের মতো গ্যালওয়ানে (প্যাটারলিং পয়েন্ট ১৪ টি অন্তর্ভুক্ত) চীনারা কমবেশি প্রত্যাহার করেছে। তাদের অনুপ্রবেশটি এখানে ১ কিমি গভীরতায় ছিল

হটস্প্রিংসগুলিতে (পট্রোলিং পয়েন্ট ১৫,১৬ এবং ১৭) অনুপ্রবেশটি ৩ কিলোমিটারের একটি আদেশ ছিল যা থেকে আংশিক প্রত্যাহার হয়েছে। একই জিনিসটি ফিঙ্গার্স অঞ্চল সহ প্যাংগং তসো এর আশেপাশের অঞ্চলে যায়। পিএলএ এখানে আংশিক ছিন্নমূলতাকে প্রভাবিত করেছে। প্রাথমিকভাবে তারা ১০ কিলোমিটার প্রবেশ করেছিল। লামাখের এলএসি-র দক্ষিণ প্রান্তের দিকে ডেমচোক-ফুক্চের আগের হটস্পটে এ বার কোনও অনুপ্রবেশ হয়নি। চাইনিজ গোল বদলেছে বলে মনে হচ্ছে।

এটি দেপসাং সমভূমি যেখানে গভীরতম অনুপ্রবেশটি চীনা সেনাবাহিনী করেছিল – ১৬-১৮ কিমি। এখানে তারা একটি ইঞ্চিও প্রত্যাহার করেনি এবং আলোচনায় দৃঢ় হয়ে দাঁড়িয়ে আছেন। কিছুই তাদের সরানো হয়নি।

অনুদপ্রবেশের গভীরতম বিন্দুটি বোতলনেক হিসাবে পরিচিত ওই অঞ্চলে। ভারতীয় সেনারা বোতলেনকে নিজেই ধরে রাখে, এলএসি-এর সাথে টহল দেওয়া থেকে তাদের বাধা দেওয়া হয়েছিল। চীনা সেনারা এর দ্বারা ভারতকে তার পাঁচটি পেট্রোলিং পয়েন্ট: পিপি -১০, পিপি -১১, পিপি -১২ এ। পিপি -12 এবং পিপি -13 এ অ্যাক্সেস অস্বীকার করছে। এই পিপিগুলি এলকিএর পশ্চিমে কয়েক কিলোমিটার পশ্চিমে রাকী নালা থেকে জিওয়ান নালা পর্যন্ত প্রায় 20 কিলোমিটারের একটি ফাঁকে অবস্থিত।

Advertisement