সঙ্গীর একাধিক প্রেম আছে? বুঝে নিন এই সব লক্ষনে

is your partner cheating on you know this facts সঙ্গীর একাধিক প্রেম আছে? বুঝে নিন এই সব লক্ষনে
সঙ্গীর একাধিক প্রেম আছে? বুঝে নিন এই সব লক্ষনে
Advertisement

রোজ হাজারো প্রেম ভাঙা-গড়ার এই শহরে, দিন বদলের সঙ্গে সঙ্গে বলদে গেছে অনুভূতি, বিশ্বাস আর. ভরসা। এখন প্রেমের সংঞ্জাও পাল্টেছে। তবে এখনকার প্রেম শুধু একজনের সঙ্গে চলে না, সঙ্গে থাকে আরো অবৈধ্য ভাবে বেশ কয়েকজনও। এক কথায়, একসঙ্গে একাধিক প্রেমিক-প্রেমিকা থাকে একজনেরই। তাইতো দিন দিন মানুষ প্রেমের প্রতি হারিয়ে ফেলছে বিশ্বাস।

এক বলা যায়- ভালোবাসার সবচেয়ে বড় শক্তি হচ্ছে বিশ্বাস। একে অপরের প্রতি বিশ্বাসের উপরই ভর করে গড়ে ওঠে ভালোবাসার রাজপ্রাসাদ। কিন্তু আপনার সঙ্গী যদি সম্পর্কে থাকাকালীন দ্বিতীয়-তৃতীয় কারো সঙ্গে সম্পর্ক রাখে তাহলেই বিপদ। এবার প্রশ্ন হলো! কী করে আপনি বুঝবেন? হ্যাঁ, অন্য কারো সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক আছে কিনা সেটি বোঝার জন্য রয়েছে বেশ কিছু উপায়। চলুন জেনে নেই কী কী সেই উপায়গুলো-

সঙ্গীর একাধিক প্রেম আছে? বুঝে নিন এই সব লক্ষনে

১.সঙ্গী আপনাকে ঠিকমতো সময় দিতে পারেন না। অনেক সময়েই লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, আপনি দেখা করতে চাইলে সে এড়িয়ে যাচ্ছে। আপনার সঙ্গে দেখা করার বদলে অন্য কিছু করছেন তিনি, কী করছেন সেটা আপনাকে জানাচ্ছেন না! জিজ্ঞেস করলে এড়িয়ে যাচ্ছেন, জানার জন্য চাপাচাপি করলে ঝগড়া করছে, অবিশ্বাস্য যা খুশি একটা জবাব দিয়ে দিচ্ছে।

২.যেকোনো পরিকল্পনা যখন তখন বাদ দিয়ে দেন। দেখা যায় আপনার সঙ্গে দেখা করার কথা। কিন্তু তিনি হুট করেই কোনো বাহানা দিয়ে তা বাদ দিয়ে দেন। আর যে বাহানা দেখান তা মোটেও বড় কোনো সমস্যার মধ্যেই পড়ে না।

৩.শুধু যে বাহানা দেখায় তা নয়, অনেক সময়ে তিনি হুট করে আপনার সঙ্গে দেখা করতে চাইতে পারেন। ভাবছেন এটা কীসের লক্ষণ? হয়তো তার অন্য কোনো প্রেমিক বা প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল। সে না আসতে পারায় আপনার সঙ্গে দেখা করতে চাচ্ছেন তিনি।

৪. আপনার সঙ্গীর ফোন সব সময় ‘ডেড’ থাকে। আপনি তাকে ফোন করে পান না। আবার তিনি যখন আপনার সঙ্গে আছেন, তখনো তার ফোন অফ। তিনি দাবি করেন চার্জ দিতে ভুলে গেছেন। এমনটা একবার দুবার হতে পারে, বারবার নয়। হয়তো আপনার সামনে অন্য প্রেমিক বা প্রেমিকার ফোন বা মেসেজ চেক করতে চান না। তাই তিনি ফোন অফ করে রাখেন।

৫. তিনি আপনাদের সম্পর্ককে কোনো নাম দিতে চান না। সম্পর্কের প্রথম দিকে এ বিষয়টি স্বাভাবিক ছিল। কিন্তু সম্পর্ক বেশ কিছুদূর অগ্রসর হবার পরেও তিনি যদি দাবি করেন আপনারা ‘শুধুই বন্ধু’, তিনি সম্পর্কটাকে ‘জটিল’ করতে চান না, বা আপনাকে ‘স্বাধীনতা’ দিতে চাচ্ছেন না। যদি এমনটা হয়, তাহলে হয়তো তার আরো সম্পর্ক রয়েছে। তাই তিনি শুধু আপনার সঙ্গে জড়িয়ে যেতে চান না।

৬. আপনার প্রেমিক যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় তেমন সক্রিয় না থাকেন, তাহলে একটু লক্ষ্য রাখুন। অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন না তেমন। তবে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম থাকার পরেও তিনি তেমন একটা পোস্ট করেন না। যাতে প্রেমিক বা প্রেমিকারা তাদের সঙ্গে তোলা সেলফি পোস্ট করতে অজুহাত দেখায়। রিলেশান সংক্রান্ত কোনো পোষ্ট দিতে রাজি থাকে নখ। যাতে না অন্য আরেকজনের থেকে লোকাতে পারে,সে কারণেই হয়ত তিনি এসব পোস্ট করেন না।

৭. তিনি চাইবেন আপনি তার বাড়ি বা অফিসে না আসেন। কারণ আপনি সেখানে উপস্থিত হলে দেখা যাবে পরিবারের কেউ, অথবা সহকর্মী তার অন্য সম্পর্কের কথা আপনাকে বলে দিয়েছে। এমনকি দুইজন হয়তো একসঙ্গে সেখানে উপস্থিত হতে পারে। এ কারণে তিনি খুব শক্তভাবে তার বাড়িতে বা অফিসে যোগাযোগ করতে নিষেধ করে দেন।

৮. ঘণ্টার পর ঘণ্টা খুঁজেও তাকে পাচ্ছেন না। তিনি হয়তো সারা সপ্তাহ আপনার সঙ্গে টেক্সট করে কথা বলে যাচ্ছেন। অথচ শনিবারে-রবিবারে তাকে খুঁজেই পাওয়া যায় না। কোনোভাবেই যোগাযোগ করা যায় না। আবার সোমবার থেকে তিনি আগের মতোই সাধারন ভাবে কথা বলছেন। এমনটা ঘটনা হলে খটকা লাগাই স্বাভাবিক।

* প্রেম-ভালোবাসা, এসব ক্ষনিকের মোহ, তাই সময় থাকতে নিজের অনুভূতিকে গুলোকে প্রাধান্য দিন। আপনার কি মনে হচ্ছে তার কোনো একটা সমস্যা আছে? তিনি আপনার সঙ্গে বিশ্বস্ত নন? এমন মনে হলে তার সঙ্গে খোলাখুলি কথা বলুন। তাকে জানান, আপনি এমন ঠুনকো একটা সম্পর্কে থাকতে রাজি নন।

Advertisement