কিং খান মাঠে থাকলে কেকেআর কি হারতে পারে ?

kkr won yester day match s
kkr won yester day match

কলকাতা হান্টঃ লীগ টেবিলে প্রথম থাকা দলটিকে পরাজয়ের শিকার হতে হল কলকাতা নাইট রাইডার্স এর কাছে প্রথম দুটি ম্যাচে ২০০ এর উপরে রান করেছিল । গতকাল ১৭৫ রান চেজ করতে গিয়ে নাস্তানাবুদ হয়ে যায় রজস্থান রয়ালস । একের পর এক উইকেট পড়ে থাকে রাজস্থান রয়েলস প্রথম থেকে চাপ সৃষ্টি করেছিল কামলেশ নাগারকটি এবং শিভম মাভি । গতকাল ব্যাটিং বোলিং এবং ফিল্ডিং তিন দিক থেকে উন্নত মানের প্রদর্শন করেছিলেন কলকাতার খেলোয়াড়রা । খেলার মাঝের সময় কিছুটা উইকেট পড়ে যাওয়ার ফলে অনেকটা ব্যাকফুটে চলে যায় কলকাতা ব্রিগেড কিন্তু মরগানের শেষের দিকে ব্যাটিং কলকাতাকে সম্মানজনক স্কোরে পৌঁছায় । বিপক্ষকে ১৭৫ রানের লক্ষ্যমাত্র দিয়ে ‌৩৭ রানে জিতল কলকাতা।

kkr match
kkr match

আরও পড়ুনঃ লক্ষী বারে কেমন কাটবে দিন? জেনে নিন আজকের রাশিফল ১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ২০২০

টসে জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ কলকাতা নাইট রাইডার্স প্রথমে ব্যাটিং করতে আসে শুবমান গিল্ল এবং সুনীল নারায়ন কলকাতার হয়ে প্রথম ব্যাটিং করতে আসে কলকাতা শুরুটা মোটেও ভাল ছিল না তবে নিতিশ রানা ব্যাটিংয়ের হাত সামলায় মাজা মারে দীনেশ কার্তিক নিতিশ রানা এবং আন্দ্রে রাসেলের মত ব্যাটসম্যানদের খোয়াতে হয় কলকাতাকে তবে রাজস্থানের কোন বোলার না থাকার জন্য ১৭৫ রানে শেষ করে কলকাতা ব্রিগেড । অন্যদিকে, হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে যেখানে শেষ করেছিলেন সেখান থেকেই যেন শুরু করেন শুভমন গিল। তিনি করেন ৪৭ রান। রানা (‌২২), রাসেল (‌২৪)‌ শুরুটা ভাল করলেও বেশিক্ষণ ক্রিজে ছিলেন না। কিন্তু কেকেআর ম্যানেজমেন্টের চিন্তা অবশ্যই বাড়াবে দীনেশ কার্তিকের অফ ফর্ম। এদিনও মাত্র ১ রান করেই আউট হলেন দীনেশ কার্তিক। তবে গিলের পর কেকেআরের ইনিংসের হাল ধরলেন সেই মর্গ্যান। শেষপর্যন্ত ২৩ বলে ৩৪ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। নির্ধারিত ২০ ওভারে ছ’‌উইকেটে ১৭৪ রানে থামে কলকাতার ইনিংস। রাজস্থানের হয়ে আর্চার দু’‌উইকেট নেন।

আরও পড়ুনঃ উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে মেপে খোঁজ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী 

প্রথম দুটি ম্যাচে দু’শোর বেশি রান করেছিল রাজস্থান রয়েলস তবে গতকাল ১৭৫ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাদেরকে তাড়া করতে গিয়ে হিমশিম খেতে দেখা যায় ভারতীয় যুব বোলিং লাইনআপ নিয়ে শুরু করেন বোলিং অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক শিভাম মাভি এবং কমলেশ নাগারকোটি আইপিএলে তাদের পারফরম্যান্স দেখালেন। দু’‌দলের পার্থক্য গড়ে দিলেন তিন ভারতীয় বোলার। দুই পেসার মাভি–নাগারকোটি এবং স্পিনার বরুণ চক্রবর্তীই কার্যত ভেঙে দিলেন রাজস্থানের ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড। বাটলার (‌২১)‌ বাদে ব্যর্থ স্মিথ (‌৩)‌, স্যামসন (৮‌), উত্থাপা (২‌)‌, পরাগ (১‌)‌।

আরও পড়ুনঃ সহজ পদ্ধতিতে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন কলকাতার রেস্টুরেন্টের স্বাদের চিকেন বিরিয়ানি

গত ম্যাচের নায়ক রাহুল তেওটিয়াও ফিরলেন মাত্র ১৪ রান করে। তিন বোলারের মধ্যে নাগারকোটি নিজের প্রথম ওভারেই তুলে নেন উত্থাপা এবং পরাগের উইকেট। শুধু আউট করাই নয়, দুরন্ত একটি ক্যাচে আর্চারকেও ফেরান তিনি। অন্যদিকে, মাভি আউট করেন দুরন্ত ফর্মে থাকা স্যামসন এবং বাটলারকে। বরুণ পান রাহুল এবং আর্চারের উইকেট। তবে শেষের দিকে নেট যোনিটার দিকে বিচার করে নামকারান আইপিএলে তার প্রথম অর্ধশত রান পূর্ণ করলেন ৯ উইকেটে শেষ হয় রাজস্থান রয়্যালসের ইনিংস ।। খেলার সেরা শিভম মাভি ।।