কেন্দ্রের কাছে JEE MAIN ও NEET পরীক্ষার তারিখ পেছানোর আর্জি জানালেন মমতা বন্দোপাধ্যায়

কেন্দ্রের কাছে JEE MAIN ও NEET পরীক্ষার তারিখ পেছানোর আর্জি জানালেন মমতা বন্দোপাধ্যায়
ছবিঃ গুগল
Advertisement

ছাড়পত্র দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। ছাড়পত্র হাতে পেয়ে ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি বা সর্বভারতীয় মেডিকেল প্রবেশিকা পরীক্ষা( NEET)এবং সর্বভারতীয় ইঞ্জিনীরিং প্রবেশিকা পরীক্ষা(JEE MAIN ) নেওয়ার জন্য পুনরায় বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। কিন্তু এই করোনা পরিস্থিতি কি করে সম্ভব এই পরীক্ষা নেওয়া?
এই প্রবেশিকা পরীক্ষার তারিখ পেছানোর জন্য কেন্দ্রের কাছে আর্জি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার পরপর দুটি টুইট-এর মাধ্যমে তিনি তার আরজি জানান।

মুখ্যমন্ত্রী তার টুইটে বলেন ” প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেষ ভিডিও কনফারেন্সে ইউজিসি-র  তরফে সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে পরীক্ষা নেওয়া নিয়ে যে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল তা নিয়ে আমি বলেছিলাম। যে পরীক্ষা ছাত্র-ছাত্রীদের বর্তমান পরিস্থিতিতে ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারে। এখন কেন্দ্রের শিক্ষামন্ত্রীর নির্দেশে NEET,JEE  পরীক্ষা সেপ্টেম্বরে নেওয়া হবে। আমি আবার কেন্দ্রের কাছে আর্জি রাখবো ছাত্র-ছাত্রীদের এই পরীক্ষা নিয়ে কতটা ঝুঁকি রয়েছে তা বিশ্লেষণ করুন এবং পরীক্ষা স্থগিত রাখুন পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত। এটা আমাদের কর্তব্য ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সুস্থ পরিবেশ দেওয়া।”

ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি গত জুলাই মাসে দুটি প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার বিজ্ঞপ্তি জারি করার পর সুপ্রিম কোর্টে কতজন পরীক্ষার্থীর অবিভাবক মিলে মামলা করেছিলেন। বর্তমানে এই করোনা পরিস্থিতি এই প্রবেশিকা পরীক্ষায় ছাত্রছাত্রীরা অংশগ্রহন করলে তাদের জীবনের ঝুঁকি থেকেই যায়। এই বিষয় নিয়েউ সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। কিন্তু এই পরীক্ষা নেওয়ার জন্য সুপ্রিম কোর্ট ছাড়পত্র দিয়ে দিয়েছে কেন্দ্রকে। গত একুশে আগস্ট এই এজেন্সির তরফ থেকে এই বিস্তারিত বিজ্ঞপ্তিটি জানানো হয়।

ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির তরফ থেকে জানানো হয়েছে আগামী ১লা সেপ্টেম্বর থেকে ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই পরীক্ষা চলবে এবং এর মধ্যেই পরীক্ষার্থীদের এডমিট কার্ড ইস্যু করার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে বলে যানা যাচ্ছে।প্রায় সাড়ে ৮ লক্ষ পরীক্ষার্থীর এবছর JEE MAIN  পরীক্ষা দেবে আর অন্যদিকে NEET পরীক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় সারে ১৫ লাখ। সংস্থাটি জানিয়েছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পরামর্শ স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কিত সমস্ত রকম সুবিধা ছাত্র-ছাত্রীদের দেয়া হবে। খুব শীঘ্রই মেডিকেল পরীক্ষার এডমিট কার্ড ইস্যু করার কাজটিও শেষ হবে বলে জানিয়েছে এই সংস্থা।

Advertisement