নির্ধারিত বয়সের আগে করোনা টিকা নিয়ে সমালোচনার মুখে সৃজিত মুখোপাধ্যায়! রইলো বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সবসময়তে সমালোচনার মুখে থাকা সেলিব্রিটিদের যেন স্বভাব হয়ে দাঁড়িয়েছে। টলিউড হোক কিংবা বলিউড তারকাদের পিছু ছাড়তে চায় না। সম্প্রতি আজ নির্ধারিত বয়সের আগে করোনা টিকা নিয়ে ব্যাপকভাবে সমালোচনার মুখে পড়লেন পরিচালক সৃজিত মুখার্জি।তবে কেন্দ্র সরকারের নিয়ম অনুযায়ী দ্বিতীয় দফায় শুধুমাত্র ষাটোর্ধ্ব বয়স্ক ব্যক্তি এবং ৪৫ বছরের উপর যাদের শারীরিক অসুস্থতার রয়েছে তাদেরকে টিকা দেওয়া হচ্ছে। তাহলে বয়সের আগে কিভাবে কিভাবে টিকা পেলেন বাঙালি পরিচালক! আর কিভাবেই বা টিকাকরনের জন্য নাম নথিভুক্ত করলেন তিনি?জানা গিয়েছে,করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পর সেই সময়কার ছবি আজ ভক্তদের সঙ্গে শেয়ার করেন এই বিখ্যাত পরিচালক। আর তাতেই ঘটে বিপত্তি। কারণ এখনও পর্যন্ত ৪৫ বছর সম্পূর্ণ হয়নি সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের।

আরও পড়ুনঃ বুধবার বাজারে ঊর্ধ্বমুখী হল সোনা; দর বাড়ল রুপোর ক্ষেত্রেও! জেনে নিন বিশদে।

তাই স্বাভাবিকভাবেই অনেকে প্রশ্ন করতে থাকেন কিভাবে টিকা নিলেন তিনি আর কেনই বা নিলেন? প্রথমে ব্যাপারটিতে বেশ প্রথমত খেয়ে গেলেও পরে শান্তি বজায় রেখে সৃজিত জানান,”আমি আমার বন্ধু ইন্দ্রনীল রায়, যে ভ্যাক্সিন নিয়েছে তাঁর থেকে জানলাম যে টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার বয়স সীমা ৪০-এ নামিয়ে আনা হয়েছে যদি হাই কোমরবিডিটি থাকে (আমার উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যা রয়েছে)। এরপর আমি প্রথম ডোজ নিয়েছি, কিন্তু এখন জানতে পারছি যে না বয়সসীমা এখনও ৪৫-ই রয়েছে। আমার বয়স ৪৪, এবং ওই খবরটা ভুয়ো ছিল। এবার আমি তো আর নিজেকে আন-ভ্যাক্সিনেট করতে পারব না, তবে একটা কথা দিচ্ছি যে আমি দ্বিতীয় ডোজটি নেবো না”। যদিও সৃজিতের এই বক্তব্যের পরও জট কেটে ওঠেনি অনেক মানুষের। তাই বারংবার সমালোচনার মুখে পড়েছেন ‘গুমনামি’ খ্যাত এই পরিচালক।কারণ এরপরেও অনেকে তার ভ্যাকসিন নেওয়াকে কেন্দ্র করে প্রশ্ন তুলেছেন।

আরও পড়ুনঃ ‘শাড়ি কেন বারমুডা পরতে পারেন!তাহলে পরিষ্কার দেখা যায়।কত নাটক দেখব আর’, মমতাকে উদ্দেশ্য করে বেফাঁস মন্তব্যের জেরে কটাক্ষে মুখে দিলীপ ঘোষ!

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য দিন দুয়েক আগেই ৬৭ তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদানের অনুষ্ঠানে সেরা বাংলা ছবির পুরস্কার জিতে নিয়েছে সৃজিত মুখোপাধ্যায় পরিচালিত এবং প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় অভিনীত ‘গুমনামি’। পাশাপাশি বেস্ট স্ক্রিনপ্লে সহ একাধিক পুরস্কার জিতেছে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের এই ছবি।তবে এই প্রথম সৃজিত মুখোপাধ্যায় এর কোন ছবি সেরা ছবির তকমা পায়নি।এর আগেও বিগত বছরগুলোতে একাধিক পুরস্কার টলিউড জগতকে এনে দিয়েছেন এই বিখ্যাত পরিচালক।