‘আপনি যে প্রশ্নই করুন না কেন, গীতায় সব কিছুর উত্তর রয়েছে’, বললেন অভিনেত্রী মৌনি রায়!

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিজের সৌন্দর্য এবং অভিনয় নিয়ে সবসময় চর্চায় থাকা ‘নাগিন’ ধারাবাহিক খ্যাত অভিনেত্রী মৌনি রায় সম্প্রতি চর্চায় এলেন হিন্দু ধর্মগ্রন্থ ভগবদ গীতা পাঠের উদ্দেশ্য প্রচার করে। বেশ নিখুঁতভাবে তিনি তার বক্তব্যে এই গ্রন্থের মাহাত্ম্য সম্বন্ধে আলোচনা করেন। প্রসঙ্গত বিগত কয়েকদিন ধরেই নানান রকমের ঘটনার জেরে হিন্দু ভাবাবেগ আহত হচ্ছে ক্রমাগত। পাশাপাশি এই ধর্মের পরিসরও কমতে শুরু করেছে। কিছু স্বার্থান্বেষী মানুষের সংস্পর্শে হিন্দু ধর্মের জনপ্রিয়তা ক্রমাগত নিম্নমুখী হচ্ছে। যদিও অনেকেই তা উদ্ধার করার চেষ্টা চালাচ্ছেন তবে একাগ্রতা কারুর মধ্যে বিশেষ লক্ষ্য করা যায়নি। এদিন হিন্দু ধর্মগ্রন্থ ভগবদ গীতা প্রসঙ্গে মৌনি রায় বলেন,”এই গ্রন্থের লেখা যে কোনও মানুষকে জীবনে ইতিবাচক হতে সাহায্য করবে। জীবনের কোনও কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হলে, কোনও সমস্যার সমাধান খুঁজে না পেলে ভগবদ গীতার থেকে সহজেই সমাধান সূত্র মিলবে”।

আরও পড়ুনঃ নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হলো করিনার দ্বিতীয় সন্তানের ছবি; রইলো বিস্তারিত

এরপরেই মৌনি এই গ্রন্থ পাঠের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে বলেন,”শুধুমাত্র ভারতে বা বলিউডে বা স্কুলেই নয়, সারা পৃথিবীর সমস্ত পেশার, সমস্ত শ্রেণির মানুষকে ভগবদ গীতা সম্পর্কে জানাতে হবে। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রদেশে মানুষের মধ্য়ে গোঁড়া মানসিকতা রয়েছে। তার পরিবর্তন হওয়া উচিত।বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও- এর কথা আমরা বলি, কিন্তু বেটা বাঁচাও, বেটা পড়াও-এর কথা বলি না। আমাদের সামাজিক স্বার্থের কথাও ভাবতে হবে। আর সেই কারণেই ভগবদ গীতা পাঠ সমাজের সব স্তরের মানুষের মানসিক বিকাশকে সমৃদ্ধ করবে”।

আরও পড়ুনঃ বিপাশাকে ছেড়ে কোথায় গেলেন করণ সিং গ্রোভার! তবে কি ভেঙে গেল সম্পর্ক?

উল্লেখ্য লকডাউন এর সময় থেকে এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুর ক্লাসে কিছুদিন ভগবদ গীতা পাঠ করার পর থেকেই অভিনেত্রী মৌনি রায়ের মধ্যে এই পরিবর্তন লক্ষ্য করা গিয়েছে।তাই আচমকাই অভিনয়ের বিবৃতি ছেড়ে মানুষকে গীতার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন তিনি। মৌনির কথায়,”বলিউড ইন্ডাস্ট্রি অত্যন্ত কঠিন জায়গা। এখানে শনিবার-রবিবার বলে কিছু হয় না। কাজের কোনও নিয়মমাফিক সময়সীমা নেই। এই ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক সময়ই বিভিন্ন মানুষ হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। ফলে ভগবত গীতা মানুষকে আত্মবিশ্বাস জোগাবে ও একাধিক সমস্যা সমাধানের পথ দেখাবে। আপনি যে প্রশ্নই করুন না কেন, গীতায় সব কিছুর উত্তর রয়েছে”।