জীবনে সুখী হবেন হনুমানজীর নাম নিলে, prey for hanumanji your life will get easy
জীবনে সুখী হবেন হনুমানজীর নাম নিলে
Advertisement

হনুমান নাকি চির শাশ্বত । তাঁর কোনো বিনাশ নেই । কিংবদন্তি বলে‚ তিনি আশীর্বাদ পেয়েছিলেন‚ যতদিন পৃথিবীতে রামের মহিমা থাকবে‚ ততদিন হনুমানও থাকবেন । আর রামচন্দ্রের মহিমা তো আবহমান কাল জুড়েই থাকবে।

বিভিন্ন সময়ে হনুমানের দর্শন পেয়েছেন সাধক-পুরুষ । তাঁদের মধ্যে অন্যতম  মাধবাচার্য‚ রামদাস স্বামী‚ রামেন্দ্র স্বামী‚ শ্রী সত্য সাঁই বাবা‚ এমনকী‚ হনুমানই নাকি ষোড়শ শতকে এসে তুলসীদাসকে হিন্দিতে রামায়ণ লিখতে বলেন ।

জীবনে সুখী হবেন হনুমানজীর নাম নিলে

ত্রেতা যুগের রামায়ণ এবং দ্বাপর যুগের মহাভারত‚ দুই মহাকাব্যেই আছেন হনুমান। রামচন্দ্রের মানবজন্ম শেষ হলে হনুমান চলে যান বিভীষণের রাজ্য লঙ্কায় ।

Read More | তারা মায়ের পুজো করলে, পূরণ হবে জীবনে সকল আটকে যাওয়া কাজ

বাস করেন শ্রীলঙ্কার সর্বোচ্চ পর্বত পেদ্রোতালাগালায়। সেখানে এক উপজাতির সেবায় তুষ্ট হন তিনি ।

জীবনে সুখী হবেন হনুমানজীর নাম নিলে, prey for hanumanji your life will get easy
জীবনে সুখী হবেন হনুমানজীর নাম নিলে

জীবনের আঙিনায় ফিরে আসে সুখ ও সমৃদ্ধি প্রতিদিন হনুমানমন্ত্র জপ করলে৷ বহু মানুষের এমনিতেই বিশ্বাস৷

মনের শক্তি বৃদ্ধি হয়ে থাকে হনুমানমন্ত্র জপ করলে৷ কারোর আর দুঃখ দুর্দশা থাকেনা হনুমান চল্লিশা প্রতিদিন পাঠ করলে৷

Read More | জীবনের এই চরম সঙ্কটে, মা তারা ই এখন সবচেয়ে বড় ভরসা

হনুমান চল্লিশা রচনা করেছেন স্বয়ং ভগবান মহাদেব৷ জীবের কুমতি বিনাশ করে সুমতি প্রদান করে থাকে হনুমান চল্লিশাই একমাত্র৷

জীবনে নিয়ে আসে স্থিতিশীলতা দুর্বলতা দূর করে৷ অভাব অনটনে দুঃখ ও দুর্দশা ঘুঁচে যায় রামের নামেই৷

তাঁকে অন্য কোনও দেবতার পুজো করতে হয়না, যিনি প্রতিদিন নিষ্ঠা ভরে হনুমান চল্লিশা পাঠ করেন, সব কিছু পাওয়া সম্ভব একমাত্র বজরঙ্গবলির সেবার মাধ্যমেই৷

Related: