দুঃসময়ে মা ভবতারিণীর কৃপায় কেটে যায় সব সমস্যা, জীবন অত্যন্ত সুন্দর হয়ে ওঠে।

prey for maa bhabatarini
মা ভবতারিণী
Advertisement

‘ভবতারিণী’ হল কৃপার অন্য নাম ৷ সমস্যা, বিপর্যয়, বাধা-বিপত্তি সমস্ত কিছুকেই জয় করা যায় অত্যন্ত সহজেই ৷ মা ভবতারিণীর স্পর্শে দক্ষিণেশ্বর আজ পৃথিবীর অন্যতম বিখ্যাত স্থান ৷ কামারপুকুরের গদাধর চট্টোপাধ্যায় মায়ের উপাসনা করেই সবার প্রিয় ঠাকুর শ্রীশ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবে পরিণত হয়েছিলেন৷ করুণাময়ী মা সন্তানকে সব সময়েই রক্ষা করে থাকেন ৷ মায়ের স্পর্শে সমস্ত বিপদ কাটে নিমেষেই ৷ মা ভবতারিণী সমস্ত বিপদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে সন্তানের জীবনে নিয়ে আসেন সুস্থিরতা ৷

ma bhabotarini
মা ভবতারিণী

আরও পড়ুনঃ দেখে নিন বাস্তুশাস্ত্র মতে কোন ঠাকুরের ছবি বা মূর্তি বাড়ির কোন দিকে রাখা উচিত

এই মন্দিরের মহিমা এখন বিশ্বজুড়ে শোনা যায়। প্রচুর দূর-দূরান্ত থেকে মায়ের দর্শন পেতে অনেক ভক্তরা ছুটে আসে এই মন্দিরে। শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব মা ভবতারিণী কে কঠোর তপস্যার মাধ্যমে সন্তুষ্ট করেছিলেন এবং মা ভবতারিণী তার সেবায় মুগ্ধ হয়ে তার পুরো জীবন রামকৃষ্ণ দেবের সেবাতেই অতিবাহিত করেছিলেন। ভক্তরা মনে করে যে প্রাণ ভরে মাকে ডাকলে তিনি তার সন্তানদের ডাকে সাড়া না দিয়ে থাকতে পারে না।

আরও পড়ুনঃ সব অসম্ভবই সম্ভব হয়ে থাকে, মা তারার শক্তিতে জীবন হয়ে ওঠে শক্তিশালী ও অর্থে পরিপূর্ণ

মায়ের আশীর্বাদে ভক্তদের জীবন আলোকময় হয়ে ওঠে। তাই মা ভবতারিণী আশীর্বাদ পেতে কলকাতা দক্ষিণেশ্বর মন্দির ছুটে আসে তার আপ্রান ভক্তরা। মাকে যদি মন থেকে ভক্তি শ্রদ্ধা করা যায় তাহলে মায়ের আশীর্বাদ সর্বদা তার মাথায় বিরাজমান থাকে। তার জীবনের সমস্ত সংকট যেন দূরীভূত হয় এক নিমেষে। জীবনে দীর্ঘকালীন সুখ-সমৃদ্ধি সমৃদ্ধি নেমে আসে।

Advertisement