আবারও স্টেশনে ফিরতে হলো রানু মন্ডল কে

Ranu Mandal had to return to the station again
Ranu Mandal had to return to the station again

বাংলা খবর ডেস্ক: ২০১৯ রাতারাতি সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে ভাইরাল হয় এক প্ল্যাটফর্ম নিবাসী ভবঘুরে মহিলা। নাম রানু মন্ডল। তার লতা কন্ঠি সুরে “এক পেয়ার কা নাগমা হে” গানটি নেটিজেনদের মন কেড়েছিলো। রানাঘাট স্টেশনের ৫ নম্বর প্লাটফর্মে বসে এক গান গাইতেন আর ভিক্ষাবৃত্তি করতেন এই রানু। অতীন্দ্র নামে এক যুবক তার নিজের ফোনে লতাকন্ঠি রানুর গান ভিডিও করে পোস্ট করার সাথে সাথেই সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয় সে।

এরপরেই সুর নিয়ে পৌঁছে যান মুম্বাই। সনি টিভির এক রিয়েলিটি সো তে হিমেশ রেশমিয়ার চোখে পড়ে রানু। হিমেশ তাকে প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসাবে গান গাওয়ার সুযোগ করে দেন। হিমেশের হাপি হার্ডি আ্যন্ড হীর ছবিতে, হিমেশের সুরে রানুর গলায় “তেরি মেরি” গানটির এক লাইন শুনে মুগ্ধ হয়েছিলেন সকলেই। ২০১৯ এ পুজো প্যান্ডেলে সর্বত্রই তার গান বেজেছিলো। কিন্তু হঠাৎ করেই কয়েকমাস পরেই মুছে গিয়েছে রানু মন্ডল।

রানুর পুরনো অবস্থায় ফিরে আসার জন্য, মানুষ তাকেই দায়ী করেছে। কিছু মানুষের কথাই এ এটাই উঠে এসেছে যে তার অহংকার বেড়ে গেছে। তার দাম্ভিক আচারনই তাকে নিচে টেনে আনে। ভক্তদের সঙ্গে বিভিন্ন সময় দুর্ব্যবহার করেছেন রানু। সেই ভিডিও ও ছবি বহুবার সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত পেয়েছে। কখনো “ডোন্ট টাচ” বলে চিৎকার, আবার কখনো অভভ্য আচরণ করেছিলেন রানু।অতীন্দ্রকে তিনি ভগবানের চাকরও বলেছেন।এমনকি এর জন্য পরবর্তীতে তিনি কোনো রকম দুঃখ প্রকাশও করেননি। এরপরে ইরান স্পটলাইট থেকে একদম ছিটকে যান। শোনা যাচ্ছে প্রচন্ড আর্থিক অনটনের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে সে। আবারো স্টেশনে ফিরতে হয়েছে তাকে।