প্রয়াত হলেন আরজেডি নেতা রঘুবংশ প্রসাদ সিং

RJD leader Raghubansh Prasad Singh passed away
RJD leader Raghubansh Prasad Singh passed away
Advertisement

প্রয়াত হলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আরজেডি নেতা রঘুবংশ প্রসাদ সিং। তিনি এইমস হাসপাতালের আইসিইউর ভেন্টিলেশনে ছিলেন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থও হয়ে উঠেছিলেন।

বেশ কিছুদিন ধরেই তার দলের সাথে একটু মন মানামানি চলছিল। তিনি সম্প্রতি তার দলকে তার ইস্থেহারের কথাও জানিয়েছিলেন। বিহারের বিধানসভা নির্বাচনের আগের এই খবরকে বেশ বড় ধাক্কা বলে মনে করা হচ্ছিল। আরজেডির প্রধান নেতা লালু প্রসাদ যাদব কে চিঠিতে লিখে পাঠিয়েছিলেন  “জননায়ক কর্পূরী ঠাকুরের মৃত্যুর পর ৩২ বছর আপনার পাশে ছিলাম। কিন্তু আর নয়। দলের নেতা, কর্মী ও সমর্থকদের কাছ থেকে প্রচুর ভালোবাসা পেয়েছি। আমাকে ক্ষমা করবেন’।

তিনি লালু প্রসাদ বাবুর খুবই কাছের মানুষ ছিলেন বলে জানা যায়। তার ইস্তেহার ঘোষণার পরে মানুষের ক্ষোভ উপছে পরে। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারিতে জড়িত লালুপ্রসাদ চিঠির উত্তরে জানিয়েছিলেন “আপনি সুস্থ হয়ে উঠলে আমরা কথা বলব। আপনি কোথাও যাচ্ছেন না”।

এদিন সকালে রঘুবংশ প্রসাদ সিং এর মৃত্যুর খবর প্রকাশিত হলে ক্ষোভের সাথে লালু টুইট করেন,” প্রিয় রঘুবংশ বাবু, এটা কি করলেন? পরশু আপনাকে বললাম কোথাও যাবেন না আর আজ এত দূরে চলে গেলেন। আমি একেবারে বাকরুদ্ধ। খুবই দুঃখিত। খুব মিস করবো আপনাকে”। এছাড়াও মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান, সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি প্রভৃতি নেতারা তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন। ইয়েচুরি বলেছেন, “দশকের পর দশক আমরা একসঙ্গে অনেক লড়াই করেছি, আজকের দিনে তার অনুপস্থিতি প্রবলভাবে অনুভূত হবে”।

ইউপিএ সরকারের প্রথম গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী ছিলেন তিনি। দেশের গ্রাম, কৃষি ব্যবস্থা সবকিছুই যেন তার নখদর্পণে ছিল। ১০০ দিনের কাজের পরিকল্পনা এবং তা বাস্তবে রূপান্তরে তার ভূমিকা অনন্য।

 

Advertisement