শহর জুরে হতে পারে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি। জানালো আবহাওয়া দপ্তর

Meteorological department warns of rain with thunderstorm in 6 districts of the state
source Google
Advertisement

উত্তরবঙ্গে নিম্নচাপের সৃষ্টি হতে পারে বলে জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। আজ থেকেই সৃষ্টি হবে এই নিম্নচাপের প্রভাব এবং সকাল থেকেই স্পষ্টত বোঝা যাচ্ছে তা। সকাল থেকে আকাশ একেবারে মেঘলা এবং ঘনঘন বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির প্রভাব দেখা যাচ্ছে।

পশ্চিমবঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী সক্রিয় হওয়ার সাথে সাথে সর্বশেষ আবহাওয়ার পূর্বাভাসে শুক্রবার পর্যন্ত দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে ভারী বৃষ্টিপাতের হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। এর পরে বৃষ্টির তীব্রতা বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে এবং ২৮ জুলাই পর্যন্ত এই অঞ্চলে চরম ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। শনিবার সকাল পর্যন্ত উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরের উপকূলীয় জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, কলকাতার নিকটবর্তী ব্যারাকপুর আবহাওয়া কেন্দ্রটিতে সর্বাধিক ৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে, তারপরে দমদম, রাজ্যের রাজধানীর সল্টলেক এবং বর্ধমানের আবহাওয়া অফিস  তা জানিয়েছে।

এখনকার সময়ে আমাদের কৃষিকাজের প্রায় বেশিরভাগ অংশটাই বৃষ্টিপাতের উপর নির্ভরশীল। উত্তরবঙ্গে প্রচুর বৃষ্টিপাত দেখা গেলেও বা বন্যার প্রকোপ সৃষ্টি হলেও দক্ষিণবঙ্গে সে তুলনায় বৃষ্টিপাত দেখা যায়নি।
কিন্তু উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের কারণে দক্ষিণবঙ্গে প্রবল বৃষ্টিপাতে আশঙ্কা জানাচ্ছে আবহাওয়া দপ্তর।

চাষিরা চাতক পাখির মতো চেয়ে আছে বর্ষার দিকে। আজ কলকাতায় কিছু কিছু জায়গায় বিকেলের দিকে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা বৃষ্টিপাত দেখার সম্ভবনা রয়েছে।

বুধবার নাগাদ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হতে পারে একটি নিম্নচাপ এই নিন্মচাপের অভিমুখ পশ্চিমে থাকায় ওড়িশা ও গাঙ্গেও পশ্চিমবঙ্গে ভারী বৃষ্টিপাতে সম্ভবনা রয়েছে। তবে কাল বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিপাত দেখা দিলেও শুক্র ও শনিবারের দিকে তা শক্তি বাড়িয়ে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং মেদিনীপুরে ভারী বৃষ্টিপাত ঘটাবে।

Advertisement