স্বল্প সঞ্চয়ীদের বড় আঘাত, ব্যাপক ভাবে কমলো সুদের হার নেপথ্যে মোদি সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদন:- সাধারণত যে কোন নতুন জিনিসের শুরু থেকেই আমাদের সেটি সম্বন্ধে নতুন কিছু আশা থাকে। এর ব্যাতিক্রম অবশ্যই লক্ষ্য করা গিয়েছে তবে অতটাও নয়। প্রসঙ্গত সম্প্রতি গতকাল ৩১ শে মার্চ চলতি অর্থবর্ষের শেষ শেষ দিন ছিল। স্বাভাবিকভাবেই আজ থেকে নতুন কিছু খবরের জন্য মুখিয়ে ছিল দেশের জনগণ। কিন্তু সাধারন দেশবাসীকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে বেশ বড়সড় ধাক্কা দেওয়া হলো স্বল্প সঞ্চয়ীদেরদের ক্ষেত্রে। গতকাল কেন্দ্রীয় সরকারের জারি করা নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী, ৪৬ বছরে সর্বনিম্ন হল পিপিএফে (public provident fund) সুদের হার। শুধুমাত্র পিপিএফ নয় বেশ কয়েকটি জায়গায় সুদের হার মাত্রাতিরিক্তভাবে কমানো হয়েছে নতুন অর্থবর্ষের শুরুর দিক থেকেই। আসুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক কেন্দ্রের এই নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোথায় কমলো সুদের হার।

আরও পড়ুনঃ আজ ১ লা এপ্রিল, বৃহস্পতিবার কেমন যাবে আপনার দিনটি? জানাচ্ছেন আমাদের জ্যোতিষীরা

সবার প্রথমে পিপিএফের কথা জেনে নেব।পিপিএফে সুদের হার কমে হল ৬.৪ শতাংশ। জানিয়ে রাখি এর আগে গত ৪৬ বছরে কখনোই এতটা নেমে যায়নি সুদের হার। শেষবার ১৯৭৪ সালে এই সুদের হারে কমতি দেখা গিয়েছিল। পিপিএফ ছাড়াও সেভিংস ডিপোজিট বা সঞ্চয় আমানতের ক্ষেত্রে সুদের হার কমে হয়েছে ৩.৫ শতাংশ। এক বছরের ডিপোজিটের সুদের হার দাড়িয়েছে ৪.৪ শতাংশ, ২ বছরের ডিপোজিটে সুদের হার থাকছে ৫ শতাংশ,৩ বছরের ডিপোজিটে ৫.১ শতাংশ এবং ৫ বছরের ক্ষেত্রে সুদের হার ৫.৮ শতাংশ। অপরদিকে ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট বা জাতীয় সঞ্চয় পত্রে সুদের হার কমে হয়েছে ৫.৯ শতাংশ।রেকারিং ডিপোজিটের ক্ষেত্রেও সুদের হার কমে হয়েছে ৫.৩ শতাংশ।এই নতুন নির্দেশিকা থেকে বোঝাই যাচ্ছে চলতি অর্থবছরে বিশেষভাবে প্রভাব পড়তে চলেছে মধ্যবিত্ত তথা দেশের সাধারণ জনগণের ওপর।এই নিয়মের ফলে একদিকে যেমন পিপিএফে প্রবীনদের প্রচুর পরিমাণে সমস্যা দেখা দেবে, ঠিক তেমনই স্বল্প সঞ্চয়ীদেরও কপালে চিন্তার ভাঁজ।

আরও পড়ুনঃ মনোনয়নপত্র জমা দিলেন ব্যারাকপুরের তৃণমূল প্রার্থী রাজ চক্রবর্তী, স্ত্রী শুভশ্রীকে সঙ্গে নিয়ে ভোটের প্রচার সারলেন পরিচালক

শুধুমাত্র এইটুকুতেই থেমে থাকেনি কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। উপরোক্ত ক্ষেত্রগুলি ছাড়াও সিনিয়র সিটিজেন সেভিংস স্কিমে সুদের হারও মারাত্মক কমানোর পর এসে দাঁড়িয়েছে ৬.৫ শতাংশে।মান্থলি ইনকাম অ্যাকাউন্টে সুদের হার কমে হয়েছে ৫.৭ শতাংশ। সবশেষে বলা যাক প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রকল্প সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনার কথা এই যোজনাতে গতকাল সুদের হার কমানোর পর তা বর্তমানে এসে দাঁড়িয়েছে ৬.৯ শতাংশে। কিষান বিকাশ পত্রেও ব্যাপকহারে কমানো হয়েছে সুদের পরিমাণ। বর্তমানে KVP-তে সুদের হার থাকছে ৬.২ শতাংশ। যদিও আচমকা এই সুদের হার কমানোর জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে কোনো বিস্তারিত কারণ জানানো হয়নি।তবে বিশেষজ্ঞদের মতে করোনাকালে আর্থিক সঙ্কটই এর মূল কারণ।

আরও পড়ুনঃ নতুন অর্থবর্ষে যাত্রীদের জন্য নয়া নিয়ম জারি করল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ

প্রসঙ্গত আপাতত দিন কয়েক দেশের বেশ কয়েকটি রাজ্যে চলছে বিধানসভা নির্বাচন।তাই ঠিক এই সময়ে হঠাৎ করে সুদের হার এত কমানোর ফলে অনেকটাই প্রভাব পড়তে পারে বিজেপির ভোটের উপর। তার কারণ মোদি সরকারের এই নির্দেশিকাতে ২০২১-২২ অর্থবর্ষে সঞ্চয় এর উপর জীবন কাটানো প্রবীণ এবং অন্যান্য কম আয়ের ব্যাক্তিদের বড়সড় ধাক্কা দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য গতকাল থেকে ১০ টাকা মূল্যহ্রাস করা হয়েছে ভর্তুকিযুক্ত রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডার এর ক্ষেত্রে।পাশাপাশি দিন দুয়েক আগে থেকেই হোলি উৎসবের পর অনেকটাই নিয়ন্ত্রিত হতে শুরু করে দিয়েছে পেট্রোপণ্যের দাম। কিন্তু হঠাৎ করে সুদের হারের ক্ষেত্রে এহেন পরিবর্তন ঘটায় স্বাভাবিকভাবেই নাজেহাল অবস্থায় পড়ে গিয়েছেন মধ্যবিত্ত সহ দেশের প্রায় বেশিরভাগ নাগরিক।