পাবজির নেশায় বুদ হয়ে নাওয়া-খাওয়া ছারলেন যুবক

পাবজির নেশায় বুদ হয়ে নাওয়া-খাওয়া ছারলেন যুবক
ছবি সুত্রঃ গুগল

পাবজির নেশা ভারতে আরও একটি জীবন দাবি করে বসল! একটি মর্মস্পর্শী মামলায়, অন্ধ্র প্রদেশের একটি 16-বছর বয়সী ছেলে, যে পাবজি খেলায় আসক্ত ছিলেন, বেশ কয়েকদিন অব্যাহতভাবে খেলে খেলে মারা গিয়েছিলেন।

করোনাভাইরাস জন্য এই লকডাউনের কারণে, ছেলেটি বাড়িতেই ছিল এবং তার বেশিরভাগ সময় অনলাইন গেমস, বিশেষত পাবজি খেলে কাটিয়েছিল। তিনি খেলায় এতটাই আসক্ত ছিলেন যে তিনি খাওয়া-দাওয়া ভুলে গিয়েছিলেন এবং কয়েকদিনের জন্য তাঁর খাবার এড়িয়ে যান।

পাবজি নামক এই কোরিয়ান গেমটিতে অনলাইনে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে এবং এতে অংশগ্রহণ করার সুযোগ প্রত্যেক প্রতিযোগি পায়। এবং একটি মোটা অঙ্কের পুরস্কার পাওয়ার সুযোগ থাকে। সেই ক্ষেত্রে আরও বেশি নেশা তৈরি হয় এই গেমের প্রতি। এক্ষেত্রেও তার ব্যাতিক্রম হয়নি।

এই কিশোরটি সেই প্রতিযোগীতা জেতার জন্য তার স্বাভাবিক জীবনযাপন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছিল। দীর্ঘদিন ধরে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে একটানা সে গেমের মধ্যো মনোনিবেশ করে ছিল। এর ফলে তার অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ শিথিল হয়ে আসে এবং সে বাজে ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

একটি রিপোর্ট অনুসারে, এক চুমুক জল বা খেতে না পেয়ে ছেলেটি মারাত্মক ডিহাইড্রেশনের কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। এর পরই তার পরিবারের সদস্যরা তাকে তড়িঘড়ি এলুরু টাউনের একটি বেসরকারী হাসপাতালে নিয়ে যায়। চরম ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে সোমবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

জানুয়ারিতে একইরকম একটি ঘটনায়, পুনেতে খেলা খেলতে গিয়ে 25 বছর বয়সী এক ব্যক্তির মস্তিষ্কের স্ট্রোকের পরে মৃত্যু হয়েছিল। প্রতিবেদন অনুসারে, গেমটি খেলতে গিয়ে, তার ডান হাত এবং পা সরাতে না পারার অভিযোগ করেছিলেন। তাকে তাত্ক্ষণিকভাবে নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, সেখানে তাকে আন্তঃস্রাবের রক্তক্ষরণ ধরা পড়ে এবং পরে তার মৃত্যু হয়।

প্লেয়ারস্ আননোন ব্যাটল গ্রউন্ড(পি ইউ বি জি) গেমটি দক্ষিণ কোরিয়ার একটি সংস্থার দ্বরা তৈরি করা। এটি একটি অনলাইন মাল্টিপ্লেয়ার খেলা এবং বিশেষজ্ঞরা দাবি করেছেন যে দিনকে দিন এটি আসক্তদের আচরণকে বিরূপ প্রভাবিত করছে।