নদীতে ঝাঁপ দিয়ে স্নান করছে ছেলের দল, ভিডিও দেখে পুরনো স্মৃতিতে ডুব দিলেন নেটিজেনরা

“এক হারিয়ে যাওয়া বন্ধুর সাথে
সকাল-বিকেল বেলা
কত পুরনো-নতুন পরিচিত গান
গাইতাম খুলে গলা”

কলকাতা হান্ট ডেস্কঃ এক হোক বা একাধিক সকলে মিলে আনন্দে মেতে ওঠার মধ্যে যে অকৃত্রিম উল্লাস রয়েছে, একটা সময়ের পর সেটা বারবার ছুঁতে ইচ্ছা করে সকলের। আজকালকার ইন্টারনেট আর গেমিংয়ের যুগে মোবাইলে মুখ গুঁজে থাকা ছেলেমেয়ে গুলো হয়তো বুঝবে না সেই আনন্দ। তখন না ছিল ফোন, না ছিল স্যোশাল মিডিয়া। অথচ সকাল বা দুপুর পুকুরে গিয়ে জলকেলি করা, সন্ধ্যা বেলায় মাঠে বসে জমিয়ে আড্ডা বা ক্রিকেট খেলা কিংবা স্কুল-কলেজের ফিরতি পথে গঙ্গার ধারে হাওয়া খেতে যাওয়া -এসব ছিল নিত্যসঙ্গী।

লেটেস্ট খবরঃ- দুই সন্তানকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য, ট্রোলের বিরুদ্ধে মোক্ষম জবাব দিলেন করিনা কাপুর খান

সময় অনেক এগিয়েছি। ইঁদুর দৌড়ে দৌড়াতে দৌড়াতে হাতছানি দেওয়া শৈশব এখন বিস্মৃতির অতলে। এখনকার ছেলেমেয়েদের জীবন বন্দি ওই ঝকঝকে মোবাইল স্ক্রিনে। কিন্তু একটা সময় ছিল, যখন ছেলের দল একসাথে পুকুরে ঝাঁপ দিয়ে খেলা করতো। এখন আর পুকুর কই আর ছেলেমেয়েদের হাতে সময়ই বা কই! তবুও সেই সময়ের কথা মনে পরলে মনটা খুশিতে ভরে ওঠে।

আরও খবরঃ- এক চিমটে কর্পূরে মিটবে সাংসারিক কলহ থেকে অর্থনৈতিক সংকট সবকিছুই, দেখুন বিস্তারিত

বালকের দল একসাথে ঝাঁপ দিচ্ছে পুকুরের জলে। কিংবা সবাই মিলে একসাথে সাঁতার কাটছে। তাদের আনন্দ দেখে মুখরিত হচ্ছে আকাশ বাতাস। এমন দৃশ্য দেখলে মন যেন গেয়ে ওঠতে চায় “আহা কি আনন্দ আকাশে বাতাসে”। স্যোশাল মিডিয়া সুযোগ করে দিল সেই দৃশ্য দেখার। তিন খুদে বালক পুকুরে সাঁতার কাটছে। আর তাদেরকে ঘিরে রয়েছেন আমজনতা। বালক গুলোর মধ্যে জয়ের আনন্দের থেকে বেশি রয়েছে একতার আনন্দ, উপভোগের আনন্দ। এমন দৃশ্য দেখে চোখ দুটো সত্যিই যেন জড়িয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button