রাজ্য জুড়ে চলবে বৃষ্টির দাপট! হলুদ সর্তকতা উত্তরে

অন্যান্য বছরের তুলনায় এই বছরে বৃষ্টি বেশি হয়েছে। বর্ষা কাল শুরু থেকেই প্রচন্ড বৃষ্টি হয়েছে। বর্ষা শুরু থেকেই বিভিন্ন জেলায় অতিরিক্ত বৃষ্টি হয়েছে। ফলে নীচু এলাকা জলমগ্ন হয়েছে। পাহাড়ি এলাকাতে বৃষ্টির ফলে ধস নেমেছে। বহু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বহু মানুষের ঘর, বাড়িতে জল ঢুকে প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এর ফলে মানুষজন দিশাহারা হয়ে পরেছিল। কিন্তু বুধবার থেকে বৃষ্টি কমায় কিছুটা স্বস্তি বোধ করেছিল মানুষজন। কিন্তু আবারও বৃষ্টির পূর্বাভাস দিলো আবহাওয়া দপ্তর। শনিবারেও দুই বঙ্গ জুড়ে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া সূত্রের তরফে জানা গেছে বিহার থেকে ওড়িষ্যায় একটি অক্ষরেখা সৃষ্টি হওয়ার ফলে পশ্চিমবঙ্গে প্রচুর জলীয় বাষ্প প্রবেশ করছে। ফলে বজ্রগর্ভ থেকে বৃষ্টির সম্ভবনা প্রবল দক্ষিণবঙ্গে। এখানে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দেওয়া রয়েছে। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং সহ কিছু জেলায় 200 মিমি বৃষ্টিপাত হওয়ায় সম্ভবনা রয়েছে। জলপাইগুড়ি, কোচবিহারে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও দিনাজপুর, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং প্রভৃতি জেলাতেও প্রচুর বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। শুধু তাই নয় পাহাড়ি এলাকায় ধ্বস নামার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই পাহাড়ি এলাকায় জারি করা হয়েছে আগাম সতর্কবার্তা।

এছাড়াও উত্তরবঙ্গের মালদা, বাঁকুড়া, মুর্শিদাবাদ, কলকাতা, নদীয়া, মালদা, হাওড়া প্রভৃতি জেলায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হবে এমনটাই জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। উত্তরবঙ্গেও দক্ষিণবঙ্গের মতো প্রচুর বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

কলকাতায় আজকে সব্বোর্চ ও সর্বনিম্ন আদ্রতার পরিমাণ থাকবে যথাক্রমে ৯৭ এবং ৮৪ শতাংশ। আর সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে যথাক্রমে ৩২ ও ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত ২৪ ঘন্টায় কলকাতা ও সংলগ্ন অঞ্চলে বৃষ্টি হয়েছে ১৩.৪ মিলিমিটার। তিন চারদিনে আবহাওয়ার পরিবর্তন ঘটবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button